মধ্যরাতের নির্বাচন করতে খালেদা জিয়াকে বন্দি করা হয়েছিলো রিজভী

image_titleমধ্যরাতের নির্বাচন করতে খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি করা হয়েছিলো বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, ‘রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে ও আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে নির্দোষ খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে বন্দি করে রাখার উদ্দেশ্যই ছিল মধ্যরাতে নির্বাচন করা। এই নির্বাচন ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক রাতের আঁধারে ব্যালট বাক্স পূর্ণ করার কাজ।’
শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সকালে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।


বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে সকাল সাড়ে ৭টায় ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মীর মিছিলটি নয়াপল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়। পরে নাইটিঙ্গেল মোড় ঘুরে আবারও কার্যালয়ের সামনে এসে মিছিলটি শেষ হয়।
বিক্ষোভ মিছিলের পর আয়োজিত সমাবেশে রিজভী আরও বলেন, জবাবদিহিতাহীন সরকারের দুঃশাসনে সম্প্রতি এক ভয়াবহ নারী নির্যাতনের শিকার হন নুসরাত জাহান রাফি। এছাড়া দেশব্যাপী নারী হত্যা ও নির্যাতনের হিড়িক পড়ে গেছে।
অনাচার-অবিচার চরম মাত্রায় বেড়ে গেছে দাবি করে রিজভী আরও বলেন, রাষ্ট্র-সমাজে নৈরাজ্যের ব্যাপক বিস্তারে মানুষের জানমালের কোনও নিরাপত্তা নেই। ক্ষমতাসীন দলের লোক হলে তার সাতখুন মাফ, আর বিরোধী দলের নেতাকর্মীরা যারা ন্যায়ের পক্ষে, গণতন্ত্রের পক্ষে সোচ্চার তাদের মায়ের কোল খালি করা হচ্ছে প্রতিনিয়ত। তাদের ঠিকানা নির্ধারণ করা হয়েছে একমাত্র কারাগারে।
মিছিলে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসান, দফতর সম্পাদক এ বি এম রাজ্জাক, কাফরুল থানা বিএনপি সভাপতি আক্তার হোসেন জিল্লু, বিএনপি নেতা দেলোয়ার হোসেন দিলু প্রমুখ।