ধস নেমেছে ডিভিডি ব্লু-রে ডিস্ক শিল্পে

image_titleক্লাউড ও অনলাইন সুবিধ বিস্তারের সঙ্গে সঙ্গে ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে বিনোদনে ব্যবহৃত ভৌত প্রযুক্তি অনুষঙ্গের। বলতে গেলে বিনোদনে ব্যবহৃত প্রযুক্তি পণ্যের বাজার খাড়া ভাবেই নিচের দিকে নেমে যাচ্ছে। এককথায় ধস নেমেছে।গত ৫ বছরে বিশ্বে ডিভিডি ও ব্লুরে সিডির বাজার অর্ধেকে নেমে এসেছে।

এ তথ্য প্রকাশ করেছে আমেরিকার মোশন পিকচার অ্যাসোসিয়েশন।ডিইজি ও আইএইচএস বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রাপ্ত উপাত্তের ভিত্তিকে সংগঠনটির পরিবেশিত তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালে বিশ্বে ২৫ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলারের ভিডিও ডিস্ক ফরম্যাটের প্রযুক্তি পণ্য বিক্রি হয়েছিলো। আর ২০১৮ সালে এই বিক্রি নেমে দাঁড়ায় মাত্র ১৩.১ ডলারে।এ বছর থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ব্লু-রে ডিস্ক উৎপাদন করতে যাচ্ছে বলে সংবাদ মাধ্যমগুলোকে জানিয়েছিলো। তবে এই সিদ্ধান্তটি এটা ফোর-কে ডিস্কের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। গত বছর একইরকম ঘোষণা দিয়েছিল চীনের ওইএম কোম্পানি অপো। অবশ্য সনি এবং প্যানাসনিক এখনও শুধু গেম কনসোল ব্যবহারকারীদের জন্যই ব্লু-রে ডিস্ক উৎপাদন অব্যাহত রেখেছে। মাইক্রোসফট এবং সনির গেমিং কনসোলগুলো এখনও ব্লু-রে নির্ভর।বিশ্বজুড়ে ২০১৮ সালে ২৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং গ্রাহকে সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬১৩.৩ মিলিয়ন। বিস্ময়করভাবে প্রথমবারের  মতো একই সময়ে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে ক্যাবল গ্রাহকের সংখ্যাও। এই সংখ্যাটা ৫৫৬ মিলিয়ন। তবে তারবিহীন স্ট্রিমিংয়ের তুলনায় এখনও মোট রাজস্ব আয় হচ্ছে ক্যাবল থেকেই। ২০১৮ সালে বিশ্বব্যাপী ১১৮ বিলিয়ন ডলার আয় হয়েছে এই প্ল্যাটফর্ম থেকে।