ক্রাইস্টচার্চ স্মরণে নববর্ষে কোন আয়োজন নেই তামিমের

image_titleবন্ধু-বান্ধব, সুহৃদ ও শুভানুধ্যায়ীদের নিয়েও একসঙ্গে হৈ চৈ করা আর অতিথি আপ্যায়ন তার বিশেষ গুণ। জাতীয় দলের ওপেনারের এই গুনের কথা সবারই কমবেশি জানা। কিন্তু এবার পহেলা বৈশাখে কোন আনন্দ আয়োজন রাখেননি টাইগার তারকা তামিম ইকবাল। তার মনে এখনো ক্রাইস্টচার্চে ঘটে যাওয়া সেই সন্ত্রাসী হামলায় অকালে প্রাণ হারানো মানুষদের প্রতি সমবেদনা।

সেকারনেই এবার বাংলা নববর্ষে কোন আয়োজন রাখেননি তামিম।এবার যেহেতু প্রিমিয়ার ক্রিকেটে খেলছেন না তাই ধারণা করা হয়েছিল চট্টগ্রামে পরিবারের সাথে বেশ ধুমধামের সাথে বাংলা নববর্ষ আয়োজন করবেন। কিন্তু তামিম ইকবাল বলেন, ‘প্রতিবার অনেক মজা করি। খেলা না থাকলে, ফ্রি থাকলে পরিবার ও বন্ধু আপনজনের সাথে হৈ চৈ করে কাটাই। তবে এবার পহেলা বৈশাখটা আমি সাদামাটাভাবে পালন করতে চাই।’তামিম আরো বলেন, ‘এইতো সেদিন নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আমরা হারিয়েছি আমাদের দেশের ৫জন ভাইকে। তাদের পরিবারের কি অবস্থা এখন? সন্ত্রাসী হামলায় যে ৫০ জন নিহত হয়েছে তাদের আপনজনদের কান্না থামেনি এখনো। তাই আমি কোনরকম ঘটা করে বর্ষবরণে না গিয়ে যারা মর্মান্তিকভাবে সন্ত্রাসী হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন, তাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। আল্লাহ তাদের পরিবারের ওপর দয়া বর্ষণ করুন- এটাই আমার নববর্ষের কামনা এবার।’ক্রাইস্টচার্চের সেই ভয়াবহ ঘটনায় ভাগ্যগুনে রক্ষা পেয়েছেন তামিম ইকবালসহ বাংলাদেশী ক্রিকেটাররা। জুমার নামাজে যেতে কিছুটা বিলম্ব হয়েছিল সেদিন তাদের। তারা মসজিদে পৌছার আগেই হামলাকারী হামলা চালায়।।