ফিরছেন হিমু আকরাম, ‌সঙ্গে শান্তি মলম

image_titleটানা ১ বছর ২ মাস পর যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরেছেন জনপ্রিয় নির্মাতা হিমু আকরাম। সে দেশের নাগরিকত্ব নিতেই তার এই দীর্ঘ প্রবাস জীবন।সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন কার্ড নিয়ে ঢাকায় ফিরেছেন এই নির্মাতা। সঙ্গে এনেছেন ‘শান্তি মলম’ হিমু জানান, যুক্তরাষ্ট্রে বসেই তিনি রচনা করেছেন একটি দীর্ঘ ধারাবাহিকের পাণ্ডুলিপি।

নাম দিয়েছেন ‘শান্তি মলম ১০ টাকা’। দেশে ফিরেই নাটকটির কাস্টিং আর শুটিং পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছেন।তার ভাষায়, ‘যুক্তরাষ্ট্রে টানা ১ বছর ২ মাস থাকলাম। যদিও মনটা সারাক্ষণ পড়ে ছিল ঢাকায়। দেশে ফিরে খুব শান্তি লাগছে। আবারও কাজে নামছি, এটা আরও ভালোলাগার বিষয়।’ ভিন্নধর্মী গল্পের নাটক নির্মাণে সবসময়ই আলোচিত ছিলেন হিমু আকরাম। অদ্ভুত আর মজার সব চরিত্র নিয়েই তিনি গল্প বুনেন। বেশিরভাগ নাটকের মাধ্যমে তিনি টিভি দর্শকদের নিয়ে যান শৈশব-কৈশোরে। প্রায় দেড় বছর বিরতির পর ফিরে এসে এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটছে না বলেই জানান হিমু।‘শান্তি মলম ১০ টাকা’র গল্পে দেখা যাবে, অভিরামপুর নামের একটি গ্রাম। বিচিত্র সব পেশার মানুষ থাকে এই গ্রামে। এর একটি চরিত্র কুব্বত আলী। যিনি বানর দিয়ে মানুষের হাত গণনা করেন। বানরের নাম মিস্টার দুলাল। গ্রামের বিভিন্ন শালিস-দরবারে দুলালকে রাখা হয় অপরাধী ধরার জন্য।

কুব্বতের সহকারীর নাম ব্যাটারি। সাইজে ছোট বলেই তার এমন নাম। ভবিষ্যতে মিস্টার দুলালের মতোই একটি বানরের মালিক হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে কুব্বতের সঙ্গে দিন কাটায় ব্যাটারি। এমন আরও কিছু বৈচিত্র্যময় চরিত্রের গল্প নিয়েই নির্মিত হচ্ছে ধারাবাহিক নাটক ‌‌‘শান্তি মলম ১০ টাকা’। হিমু আকরামের রচনা ও পরিচালনায় নাটকটি একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের জন্য নির্মিত হচ্ছে। ধারাবাহিকটি প্রসঙ্গে হিমু আকরাম বলেন, ‘চারপাশে হাজার পেশার হাজার রকমের খেটে খাওয়া মানুষ দেখি আমরা। সেই মানুষের জীবন চরিত্র নিয়েই নাটকের গল্পটি লেখা। যাতে প্রেম, সম্পর্কের জটিলতা, হাসি, ঝগড়া, খুনসুটি সবই রাখার চেষ্টা করছি। দর্শকরা দেখে মজা পাবে বলেই আমার বিশ্বাস।’হিমু আকরামের রচনা ও পরিচালনায় সর্বশেষ ধারাবাহিক ‘চম্পাকলি টকিজ’। সাত মাস আগে নাটকটির প্রচার শেষ হয়েছে আরটিভিতে। একই পরিচালকের আলোচিত অন্য নাটকের মধ্যে রয়েছে- ‘বিদেশি পাড়া’, ‘নূর আলমের ক্যাসেট’, ‘কঙ্কাবতির চিঠি’, ‘নজিরবিহীন নজর আলী’, ‘৭২ ঘণ্টা’ প্রভৃতি।