দুর্ঘটনার সম্ভাব্য কারণ তিনটি

image_titleবিস্ফোরক পরিদফতরের প্রধান পরিদর্শক শামসুল আলম বলেছেন, ‘আমরা ঘটনাস্থল থেকে অনেকগুলো ক্লু পেয়েছি। ধারণা করা হচ্ছে তিনটি কারণে আগুন লাগতে পারে। কারণগুলো হচ্ছে- ট্রান্সফরমার, গ্যাস সিলিন্ডার অথবা কেমিক্যাল বিস্ফোরণের কারণে।’
শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে পুরান ঢাকার চকবাজারে আগুন লাগার ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।


এদিকে আগুন লাগার ঘটনায় বিস্ফোরক পরিদফতর থেকে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পরিদফতরের প্রধান পরিদর্শক শামসুল আলমকে প্রধান করে এই কমিটি গঠন করা হয়। বাকি দুই সদস্য হলেন- পরিদর্শক মুনীরা ইয়াসমিন ও তোফাজ্জল হোসেন। এই তদন্ত কমিটিকে আগামী সাত দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
পরিদর্শক শামসুল আলম বলেন, ‘আমরা কয়েকটি গাড়ি চেক করেছি। অনেকেই দুর্ঘটনাস্থলে থাকা যেই পিকআপটির সিলিন্ডার বিস্ফোরণে কারণে আগুনের সূত্রপাতের কথা বলেছিল সেই পিকআপের সিলিন্ডারটি অক্ষত অবস্থায় আছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দেখা গেছে এই এলাকায় বেশ কিছু কেমিক্যালের দোকান রয়েছে। তাছারা ওয়াহিদ ম্যানশনের নিচে কিছু প্লাস্টিকের দানার দোকান ছিল। যার কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে।’
শামসুল আলম বলেন, ‘আমরা যে সিলিন্ডারের লাইসেন্স দেই সেটি আবাসিক ও বাণিজ্যিক দুই কারণেই দেই। কিন্তু কোন এলাকায় কী পরিমাণ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রি থাকবে সেটা আমাদের দেখার বিষয় নয়। সেটি দেখে রাজউক।’
তিনি বলেন, ‘কয়েকদিন আগে মেয়র (সাঈদ খোকন) সাহেব আমাদের নিয়ে এইসব এলাকা পরিদর্শন করেন। নানা উদ্যোগের কথা আলোচনা হচ্ছিল। আরও আগে শুরু করা গেলে হয়তো এই ঘটনা ঘটতো না।আগুন লাগতেই পারে।

কিন্তু সে আগুন কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে সেটাই মূল বিষয়।’