সুস্থ থাকতে স্যুপ

image_title

এখনো বাতাসে মাঘের কুয়াশার ঘ্রাণ পাওয়া যাচ্ছে। এই সময়ে ধোঁয়া ওঠা কুসুম-গরম এক বাটি স্যুপের কদর কেমন, বলুন তো? শীত যাচ্ছে, হালকা গরমের আঁচ টের পাচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে ঠান্ডা লেগে যাওয়া, খুশখুশে কাশি, সর্দি লাগছে। তখন স্যুপ খেলে বেশ আরাম লাগে।

আর ওজন কমানোর বিষয়টি মাথায় রাখলে তো কথাই নেই। এ সময়ে কেন স্যুপ রাখতে পারেন খাবার টেবিলে, চলুন দেখে নিই কিছু কারণ।

স্যুপ দেবে তৃপ্তিকর উষ্ণতা

শীতের সময়ে উষ্ণতার জোগান হিসেবে কাজ করে স্যুপ। শরীরের উষ্ণতা বাড়িয়ে ঠান্ডা কমিয়ে দেবে। স্যুপের সাথে দিতে পারেন আদা, মরিচ ও দারুচিনি বা লবঙ্গ। এই জাতীয় উপাদানগুলো বাড়াবে স্যুপের কর্মক্ষমতা। স্যুপের মাধ্যমে তৃপ্তি আর পুষ্টির সংমিশ্রণে এমন স্বাস্থ্যকর উষ্ণতা নিতে পারেন।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

শীতকালে আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতায় ঘাটতি তৈরি হয়। জ্বর, সর্দি, কাশির বাড়ে। পুষ্টিকর উপায়ে তৈরি স্যুপ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এই মৌসুমে পালংশাক, মটরশুঁটি, বাঁধাকপি, ফুলকপি, বিনস, পিঁয়াজকলি, বিট, গাজর ইত্যাদি নানান ধরনের সবজি পাওয়া যায়। এগুলোতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট রয়েছে। সবজির স্যুপ খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে, ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

স্বাদে ও ধরনে বিচিত্র

বিভিন্ন ধরনের স্যুপ তৈরি করা যায়। স্যুপ কখনো একঘেয়ামি আনবেন না। নতুন নতুন উপাদান মিশিয়ে নতুনত্ব আনতে পারেন।

থাই কিংবা সবজি স্যুপ যেমন খাবেন, আমিষের প্রয়োজনে খেতে পারেন মুরগির (চিকেন) স্যুপ। সবজির স্যুপ আমাদের শরীরের ২৩ শতাংশ পটাশিয়াম, ১৪ শতাংশ রিবোফ্ল্যাভিন এবং ১০ শতাংশ আঁশের চাহিদা পূরণ করে। স্বাদ-গন্ধ আর বিচিত্র রকমফের থাকায় এই খাদ্য উপাদানটি আপনাকে প্রতিদিন দিতে পারে অনন্য পরিতৃপ্তি।

সহজলভ্য ও অনায়াসে রান্নার উপযোগী

স্যুপ তৈরির উপাদান বাজারে সহজলভ্য। আপনার প্রতিদিনের বাজারের ব্যাগে যেসব খাদ্যপণ্য নিয়ে বাসায় ফিরছেন, সেগুলোর অংশ মিলে তৈরি করা যায় সুস্বাদু স্যুপ। উদ্বৃত্ত খাবার কাজে লাগিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন স্যুপ। এটি রান্না করা তেমন কষ্টকর কাজ নয়। সেই সঙ্গে কম কার্বন পোড়ায় কিংবা অল্প গ্যাস ব্যবহারে রান্না করা যায় বলে এটি পরিবেশবান্ধবও।

স্বাস্থ্যকর ও স্বস্তিদায়ক খাবারটি পূরণ করবে পুষ্টির চাহিদা

স্বাস্থ্যকর ডায়েট নিয়ে আপনার ভাবনা অনেকাংশে লাঘব করতে পারে চমৎকার এক বাটি স্যুপ। যাঁরা নিয়মিত সঠিক উপায়ে তৈরি স্যুপ দিয়ে খাবার শুরু করেন, তাঁদের ভালো থাকার হার বেড়ে যায়। ওজন কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে স্যুপে ব্যবহৃত উপাদানগুলোর। স্যুপ পূরণ করে শরীরের পানিশূন্যতা। কম ক্যালরি খাবার হওয়াতে প্রয়োজনীয় পুষ্টি জোগায়। দরকারি খাদ্যগুণ সরবরাহ করে। পরিপাকতন্ত্রের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। মেদ-চর্বি বাড়তে দেয় না বলে স্যুপ খেয়ে আপনাকে ডায়েট নিয়ে চিন্তায় থাকতে হয় না। পুষ্টিকর ও সুস্বাদু খাদ্যটি আপনাকে দেয় স্বস্তি। অনেকে ওজন নিয়ন্ত্রণের জন্য সারা দিনই শুধু স্যুপ খেয়ে থাকেন। এটি অনুচিত। শরীরে শর্করার দরকার আছে। ভারসাম্য ডায়েট মেনে চলতে হবে।

পুষ্টিবিদের সঙ্গে কথা বলে লিখেছেন নীরব মাহমুদ