প্রতিদিন দই খাওয়ার উপকারিতা

image_titleদুগ্ধজাত খাবার হিসেবে এতে রয়েছে ক্যালশিয়াম, ভিটামিন বি-২, বি ১২, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম। দই স্বাস্থ্য ভালো রাখার পাশাপাশি ত্বক ভালো রাখতেও সাহায্য করে।স্বাস্থ্য-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদিন থেকে প্রতিদিন দই খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে জানানো হল।হজমে সহায়তা: দই প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ খাবার যা স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে।

দইয়ের উপকারী ব্যাক্টেরিয়া হজমে সাহায্য করে এবং পেটের সমস্যা দূর করে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: দইয়ে থাকা কার্যকর ব্যাক্টেরিয়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ও শরীর সুস্থ রাখে। দই ভিটামিন ও প্রোটিন সমৃদ্ধ এবং এতে আছে ল্যাকটোব্যাসিলাস যা, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে।স্বাস্থ্যকর ও উজ্জ্বল ত্বক: দই ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করে এবং শুষ্ক ত্বক প্রাকৃতিকভাবে সুস্থ রাখে। এর ল্যাক্টিক অ্যাসিড ত্বক এক্সফলিয়েট করে এবং মৃত কোষ দূর করে। দই ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ ধীর করতে পারে। রূপচর্চায় যে কোনো মুখের প্যাক তৈরি করতে দই ব্যবহার করতে পারেন।উচ্চ রক্তচাপ কমায়: আমেরিকার হার্ট অ্যাসসিয়েশনের গবেষকদের মতে, টক দই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। গবেষণায় দেখা যায়, যারা কম চর্বি যুক্ত দই খান তাদের উচ্চ রক্ত চাপ তুলনামূলক কম হয়। হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখে: প্রতিদিন দই খাওয়া হলে এর ক্যালশিয়াম হাড় গঠনে সহায়তা করে। তিন চার কাপ দইয়ে ২৭৫ মি.গ্রা. ক্যালশিয়াম থাকে যা হাড়ের স্বাস্থ্যভালো রাখতে পারে।আরও পড়ুন-টক দই  রূপচর্চায় দই  মিষ্টি দই  ।