আহ্‌ আইসক্রিম

image_title

আইসক্রিম। খেলেই জুড়ায় মনপ্রাণ। আইসক্রিম বানাতে পারেন ঘরেই। তেমন কিছু আইসক্রিমের রেসিপি দিয়েছেন আফরোজা নাজনীন

বাদাম মালাই কুলফি
উপকরণ: গরুর দুধ ৫০০ মিলিলিটার, গুঁড়া দুধ ৩ টেবিল চামচ, কনডেন্সড মিল্ক ৩ টেবিল চামচ, চিনি ৩ টেবিল চামচ, কর্নফ্লাওয়ার ১ টেবিল চামচ, কাজুবাদামগুঁড়া ৩ টেবিল চামচ, কাঠবাদামগুঁড়া ৩ টেবিল চামচ, স্ট্রবেরি এসেন্স ৩ ফোঁটা, কাজুবাদামকুচি ২ টেবিল চামচ ও কাঠবাদামকুচি ২ টেবিল চামচ।
প্রণালি: প্রথমে ৫০০ মিলিলিটার দুধ ফুটিয়ে ৩০০ মিলিলিটারের মতো করে নিতে হবে। দুধ ফোটানোর সময় দুধের যে সরটা পড়বে, ওটা চামচ দিয়ে মিশিয়ে দিন। এরপর এতে গুঁড়া দুধ ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে নিন। এবার একে একে চিনি, কনডেন্সড মিল্ক দিয়ে অনবরত নাড়তে হবে। দুই-তিন মিনিট পর কাজু আর কাঠবাদামগুঁড়া দিতে হবে এবং বেশ কিছুক্ষণ নাড়তে হবে। কর্নফ্লাওয়ার মিশিয়ে ভালো করে নাড়ুন। খেয়াল রাখুন দুধের মধ্যে কোনো দানা যেন না থাকে।

দুধের মিশ্রণ একদম ঘন হয়ে এলে অল্প বাদামকুচি, স্ট্রবেরি এসেন্স দিয়ে ভালো করে নেড়ে চুলা বন্ধ করে দিন। মিশ্রণটি পুরো ঠান্ডা হয়ে গেলে কুলফি মোল্ড, বায়ুরোধী (এয়ারটাইট) বাক্স বা মাটির ভারে ভরে ওপর দিয়ে বাদামকুচি ছড়িয়ে দিন। ডিপ ফ্রিজে আট-নয় ঘণ্টা রেখে পরিবেশন করুন।

কুলফির ছাঁচ পানির পাত্রে ডুবিয়ে নিলে কুলফি বেরিয়ে আসবে সুন্দরভাবে।

কালা খাট্টা গোলা

কালা খাট্টা সিরাপের উপকরণ: চিনি আধা কাপ, পানি পৌনে এক কাপ, সাদা লবণ এক চিমটি, বিট লবণ ১ চা-চামচ, ভাজা জিরাগুঁড়া ২ চা-চামচ, লেবুর রস ৪-৫ চা-চামচ, লাল ও সবুজ খাবার রং ২ ফোঁটা করে।

গোলার জন্য উপকরণ: বরফ ১ বাটি, কাগজের কাপ ২টা ও আইসক্রিমের চামচ ২টি।

প্রণালি: প্রথমে চিনি পানিতে গুলে চুলায় বসিয়ে দিন। একটু ফুটিয়ে এতে লবণ, বিট লবণ, ভাজা জিরাগুঁড়া ও লেবুর রস একে একে মেশাতে হবে।

আরও কিছু সময় জ্বাল দিয়ে ঠান্ডা করে এর মধ্যে খাবার রং মিশিয়ে তৈরি করতে হবে কালা খাট্টা সিরাপ। এবার বরফ একটা পরিষ্কার তোয়ালেতে নিয়ে ভারী কিছু দিয়ে ভেঙে নিন। তারপর মিক্সচার মেশিনে আর একটু গুঁড়ো করে নিতে হবে। এবার একটা প্লাস্টিকের গ্লাসে স্ট্র বা আইসক্রিমের কাঠি দিয়ে বরফ গুঁড়া চেপে চেপে বসিয়ে দিন। এরপর কালা খাট্টা সিরাপ ছড়িয়ে দিলেই তৈরি মজাদার কালা খাট্টা গোলা।

তালের আইসক্রিম

উপকরণ: তালের ক্বাথ আধা কাপ, ডাবল ক্রিম ১ কাপ, কনডেন্সড মিল্ক আধা কাপ, দুধ ১ কাপ, সাজানোর জন্য গ্রেট করা চকলেট ও মিক্সড ফ্রুটস জেলি।

প্রণালি: প্রথমে হাত ব্লেন্ডারে ক্রিম খুব ভালো করে ফেটিয়ে নিন। ক্রিমে বাকি সব উপকরণ দিয়ে আবার ভালো করে ফেটাতে হবে। এবার মিশ্রণটি প্লাস্টিকের টিফিন বক্সে ঢেলে ডিপ ফ্রিজে ঘণ্টা তিনেক রেখে দিন। আইসক্রিম ফ্রিজ থেকে বের করে হ্যান্ড ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিতে হবে, যতক্ষণ না মিশ্রণটি পুরোপুরি মসৃণ হয়।

দ্বিতীয়বার যখন আইসক্রিমের মিশ্রণ ব্লেন্ড করতে হবে তখন খুব ভালো করে করতে হবে। না হলে আইসক্রিমটা বরফের মতো শক্ত হয়ে যাবে। মিশ্রণটি ডিপ ফ্রিজে তিন-চার ঘণ্টার জন্য জমিয়ে নিন।

স্কুপে করে আইসক্রিম কেটে নিয়ে প্লেটে রেখে চকলেট আর জেলি দিয়ে পছন্দমতো সাজিয়ে নিতে হবে।

কফি আইসক্রিম

উপকরণ: ফুল ক্রিম দুধ আধা লিটার, গুঁড়া দুধ ১০০ গ্রাম, ভ্যানিলা বা চকলেট এসেন্স কয়েক ফোঁটা, গুঁড়া চিনি ১ চা-চামচ, কফি পাউডার ২ চা-চামচ, কোকো পাউডার ১ চা-চামচ ও কর্নফ্লাওয়ার ২-৩ চা-চামচ।

প্রণালি: দুধ একটা পাত্রে নিয়ে জ্বাল দিয়ে ফুটে উঠলে হুইস্ক দিয়ে ক্রমাগত নাড়তে থাকুন। এবার এর মধ্যে এসেন্স দিন ও গুঁড়া দুধ অল্প অল্প করে দিয়ে পুরোটা মিশিয়ে নিন। দুধটা পুরো মিশে গেলে চিনি মিশিয়ে নিন। এর মধ্যে একে একে কফি পাউডার ও কোকো পাউডার মেশাতে হবে। এবার একটা বাটিতে অল্প পানি নিয়ে ওর মধ্যে কর্নফ্লাওয়ার গুলে নিন। ফুটন্ত দুধে গুলে রাখা কর্নফ্লাওয়ার দিয়ে দিন। ভালো করে আবার নেড়ে নিন। চুলা থেকে নামিয়ে অপেক্ষাকৃত ঠান্ডা ঘরে এনে ওই মিশ্রণটা হুইস্ক দিয়ে আবার নাড়তে থাকুন, যতক্ষণ পর্যন্ত এটা ঠান্ডা হচ্ছে। পুরোপুরি ঠান্ডা হয়ে গেলে আইসক্রিমের মোল্ডে ঢেলে ফ্রিজারে সেট করতে দিন। দুই ঘণ্টা পরপর (দুই-তিনবার) একটা চামচ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে দিতে হবে, যাতে বরফ না জমতে পারে। ৭–৮ ঘণ্টা পর আইসক্রিম পুরো জমে গেলে ফ্রিজ থেকে বের করে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

ডাবের আইসক্রিম

উপকরণ: হুইপড ক্রিম ১ কাপ, ডাবের পানি ১ কাপ, ডাবের শাঁস ৩টি ডাবের, গুঁড়া চিনি ২ টেবিল চামচ, কনডেন্সড মিল্ক আধা কাপ।

প্রণালি: প্রথমে ক্রিম ভালোভাবে বিট করে নিন। যতক্ষণ না নরম চূড়া তৈরি হচ্ছে। ডাবের শাঁস থেকে কিছুটা পরিমাণ সরিয়ে রেখে বাকি শাঁসটা একটি ব্লেন্ডারে ডাবের পানিসহ ব্লেন্ড করে নিন। ডাবের শাঁসের বাকি অংশটা ছোট ছোট করে কেটে নিতে হবে। এবার বিট করে রাখা হুইপড ক্রিমে গুঁড়া চিনি মেশান। এরপর তাতে কনডেন্সড মিল্ক মেশান। ব্লেন্ড করে রাখা ডাবের পানি আর শাঁসের মিশ্রণ ক্রিমের মিশ্রণের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। সব উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এতে ডাবের কুচি মিশিয়ে নিন। এরপর এটা যেকোনো ঢাকনাওয়ালা বাটিতে ঢেলে ফ্রিজে ছয়-সাত ঘণ্টার জন্য বা সারা রাত জমতে দিন। বাটির আইসক্রিম দুই ঘণ্টা পরপর (দুই-তিনবার) একটা চামচ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে দিতে হবে, যাতে বরফ না জমতে পারে। ৭–৮ ঘণ্টা পর আইসক্রিম পুরো জমে গেলে ফ্রিজ থেকে বের করে পরিবেশন করুন।