উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপিয়ে ফায়দা হাসিল করতে চায় পুলিশ শিবির

image_title‘গুলিস্তান-সায়েন্সল্যাবে সব হামলাতেই ছাত্রশিবির জড়িত’ উল্লেখ করে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট প্রধান মনিরুল ইসলামের মিথ্যাচার এবং ভিত্তিহীন বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. মোবারক হোসাইন ও সেক্রেটারি জেনারেল সিরাজুল ইসলাম তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান।বিবৃতিতে শিবিরের সভাপতি ও সেক্রেটারি জেনারেল বলেন, পুলিশের উপর হামলা নিয়ে গণমাধ্যমের কাছে উগ্রবাদীদের সাথে ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে তিনি যে দায়িত্বহীন ও বাস্তবতা বিবর্জিত বক্তব্য দিয়েছেন তাতে আমরা বিস্মিত। ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে তার প্রতিটি কথা নিকৃষ্ট মিথ্যাচার ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক।

একজন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা হয়েও সামান্যতম তথ্য প্রমাণ ছাড়াই রাজনৈতিক ও বিদ্ধেষমূলক অবস্থান থেকে তিনি এই বক্তব্য দিয়েছেন।নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, দেশবাসী দেখছে যে উগ্রবাদ নিয়ে সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা একেক সময় একেক রকম বক্তব্য দিচ্ছে। একই সাথে তার মত দলীয় মনোভাবাপন্ন পুলিশ কর্মকর্তারাও রাজনৈতিক নেতাদের মতই বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিচ্ছেন। তার এই বক্তব্য বিভ্রান্তিকে আরো প্রকট করবে। সরকার নিজেদের ব্যর্থতাকে আড়াল করতে মনিরুলের মত কিছু দলীয় পুলিশ কর্মকর্তাদের ব্যবহার করছে। এর আগেও তিনি ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে এমন দায়িত্বহীন বক্তব্য দিয়েছেন যা সময়ের ব্যবধানে মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে।তারা বলেন, মূলত মিথ্যাচার করে বিশেষ এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে সরকার ও পুলিশ পরিকল্পিতভাবে উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপিয়ে ফায়দা হাসিল করতে চাইছে। যার প্রতিফলন ঘটেছে তার এই বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের মাধ্যমে। আমরা মনে করি, দেশে ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলনের বিরুদ্ধে সরকারে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই এই বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দেয়া হয়েছে। আমরা দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, ছাত্রশিবির নিজস্ব কর্মসূচি অনুযায়ী ছাত্রদেরকে সাথে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। কোন প্রকার উগ্রবাদী কর্মকাণ্ডের সাথে ছাত্রশিবিরের দূরতম কোনো সম্পর্ক নাই। কারণ শিবির উগ্রবাদে বিশ্বাস করে না।নেতৃবৃন্দ বলেন, কোন গোষ্ঠির ক্রীড়নক হয়ে দায়িত্ব ভুলে মিথ্যাচার করা পুলিশের পবিত্র দায়িত্বের প্রতি চরম অবহেলা। জাতি পুলিশকে আরো দায়িত্বশীল ভূমিকায় দেখতে চায়। এমন দায়িত্বহীন ভূমিকা অব্যাহত রাখলে জনগণের অনাস্থা ছাড়া তারা আর কিছুই অর্জন করতে পারবে না। যা কোনভাবেই কাঙ্খিত নয়।

নেতৃবৃন্দ আইন-শৃঙ্খলার পবিত্র দায়িত্বে নিয়োজিত থেকে মিথ্যাচার না করতে ও সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেফতার করতে পুলিশের প্রতি আহ্বান জানান। বিজ্ঞপ্তি।।