শামির আসল শাস্তির অপেক্ষায় হাসিন

image_titleভারতীয় ক্রিকেটার মুহাম্মদ শামি ও তার ভাই হাসিদ আহমেদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আলিপুরের একটি আদালত। শামির সাবেক স্ত্রী হাসিন জাহানের দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতেই আদালত এই নির্দেশ দিয়েছে।১৫ দিনের মধ্যে আদালতে আত্মসমর্পণ না করলে কিংবা জামিনের জন্য আবেদন না করলে গ্রেফতার করা হবে এই তারকা ক্রিকেটার ও তার ভাইকে। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে স্ত্রী হাসিন জাহান পারিবারিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন।

এই মামলায় একাধিকবার শুনানিতে অনুপস্থিত ছিলেন শামি। যে কারণে মূলত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ান জারি করা হলো। কয়েকমাস আগে শামির উত্তরপ্রদেশের বাড়িতে গিয়ে হাসিন জাহানকে পুলিশি হয়রানির সামনে পড়তে হয়েছিল। সেই সময়, উত্তরপ্রদেশের পুলিশের বিরুদ্ধে বিষোদগার করেছিলেন হাসিন।এই মুহূর্তে ভারতীয় দলের সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে রয়েছেন মুহাম্মদ শামি। সফর শেষ হওয়ার আগেই ‘দুঃসংবাদ’ আছড়ে পড়ল ভারতীয় ক্রিকেটে। ঘটনাচক্রে, বল হাতে বেশ ফর্মে রয়েছেন শামি। জামাইকাতে দ্বিতীয় টেস্টেই ক্যারিয়ারের দেড়শো উইকেট শিকার করে ফেলেছিলেন। তার আগে বিশ্বকাপেও বেশ ছন্দে ছিলেন এই ডানহাতি পেস তারকা। মাত্র ৪ ম্যাচ খেলেই ১৪টি উইকেট দখল করে নিয়েছিলেন বিশ্বকাপে। ফলে, শামি এই আইনি বিপত্তির মুখে পড়ায় অস্বস্তি পড়তে হবে বিসিসিআইকেও।এই গ্রেফতারি পরোয়ানার বিষয়ে হাসিন জাহান বলেন, ‘এটা আইনি প্রক্রিয়ার অংশ। শামি নির্বিঘ্নে এসে জামিন নিয়ে বেরিয়ে যাবে। অনেক সময় রয়েছে ওর কাছে। আসল শাস্তির জন্য অপেক্ষা করছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘শামি ছাড়াও অনেকের সঙ্গে লড়তে হচ্ছে আমাকে।

এই সমাজ আমার লড়াইকে সঙ্গ দিচ্ছে না। তবে ছোট্ট মেয়ে আইরাকে নিয়ে শামির শাস্তির জন্য লড়াই চালিয়ে যাব। প্রচণ্ড আর্থিক সমস্যায় রয়েছি।’উল্লেখ্য, গত বছরেই শামির বিরুদ্ধে পরকীয়া ও যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছিলেন হাসিন জাহান। সেই সময় নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে একাধিক স্ক্রিনশটও শেয়ার করেছিলেন তিনি। এরপরেই শামিকে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের বার্ষিক চুক্তি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল। সাময়িকভাবে খেলার উপরেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। পরে প্রমাণের অভাবে অবশ্য ক্রিকেটারকে বাইশ গজে ফেরেন এই পেসার।।