বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জিয়ার কবরে গণ্ডগোল, আঞ্জু লাঞ্ছিত

image_titleরোববার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এ ঘটনায় আঞ্জুকে কিল-ঘুষি মেরে তার পোশাক ছিঁড়ে ফেলে উশৃঙ্খল কর্মীরা।ওই ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর দোষীদের চিহ্নিত করতে মহানগরের নেতাদের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব।নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মহানগর উত্তরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব চালিয়ে আসা বজলুল বাসিত আঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক আহসানউল্লাহ হাসান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এজিএম শামসুল হকসহ কিছু নেতাকর্মী জিয়ার কবরে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য সকালে চন্দ্রিমা উদ্যানের একদিকে সমবেত হন।এ সময় মীরপুর থানা কমিটির একদল কর্মী তাদের ধাওয়া করলে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়।

এ সময় আঞ্জুকে ধরে মাটিতে ফেলে তার পাঞ্জাবি ও গেঞ্জি ছিঁড়ে ফেলতে দেখা যায়। এক পর্যায়ে ছেঁড়া পোশাক নিয়েই দৌড়াতে থাকেন আঞ্জু।এদিকে পরিস্থিতি খারাপ দেখে আহসানউল্লাহ হাসান ও এজিএম শামসুল হকসহ অন্যরা দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে সরে জিয়ার সমাধির দিকে চলে যান।এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে বিএনপির দপ্তরের নেতারা বলেন, তারা বিষয়টি জানতে পেরেছেন। এ ব্যাপারে তদন্ত করে দোষীদের চিহ্নিত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।মহানগরের এক নেতা বলেন, ঢাকা মহানগর উত্তরের থানা ও ওয়ার্ড কমিটির পদবঞ্চিত বিক্ষুব্ধরা এ ঘট্না ঘটিয়েছে। হামলাকারীরা মোহাম্মদপুর ও মিরপুরের কর্মী।এক সময়ের ছাত্রনেতা বজলুল বাসিত আঞ্জু ঢাকা সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরও ছিলেন। বিএনপির মহানগর শাখায় তিনি যুক্ত আছেন দীর্ঘাদিন ধরে।ঢাকা উত্তরর বিএনপির সভাপতি এম এ কাইয়ুম ইতালীয় নাগরিক তাভেল্লা হত্যা মামলায় আসামি হওয়ার পর থেকে দেশের বাইরে পালিয়ে আছেন। তখন থেকেই ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্বে আছেন বজলুল বাসিত আঞ্জু।।