আর্থিক প্রতিষ্ঠানের খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৩২ শতাংশ

image_titleতিন মাসের ব্যবধানে দেশের নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে (এনবিএফআই) খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৩২ শতাংশ। জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত সময়ে এক হাজার ৭৬১ কোটি টাকা খেলাপি ঋণ বেড়েছে এসব প্রতিষ্ঠানে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইন্যান্সিয়াল স্ট্যাবিলিটি অ্যাসেসমেন্ট রিপোর্ট থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই তিন মাসে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের খেলাপি ঋণ বেড়ে ৭ হাজার ২২১ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে।

ডিসেম্বর (২০১৮) শেষে এই খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৫ হাজার ৪৬০ কোটি টাকা।বিভিন্ন কেলেঙ্কারি ও অনিয়মের কারণে দেশের এনবিএফআই খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ক্রমেই বেড়েছে। সম্প্রতি অনিয়মের কারণে পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেডকে বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।তথ্য অনুযায়ী নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের খেলাপির পরিমাণ ১০ দশমিক ৩ শতাংশ। ডিসেম্বর (২০১৮) শেষে তা ছিল ৭ দশমিক ৯ শতাংশ। পরিচালকদের ঋণ ভাগাভাগি ও দুর্নীতির কারণে আস্থা হারিয়েছে খাতটি। কঠিন রোগে আক্রান্ত এই খাতকে বাঁচাতে আইনের কঠোর প্রয়োগ প্রয়োজন বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।বিপুল পরিমাণ খেলাপি ঋণ আর আমানতকারীদের টাকা ফেরতে ব্যর্থতার কারণে পিপলস লিজিং বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে, পিপলস লিজিংয়ের আমানতের চেয়ে সম্পদের পরিমাণ বেশি আছে। প্রতিষ্ঠানটির আমানতের পরিমাণ ২ হাজার ৩৬ কোটি টাকা। এর বিপরীতে সম্পদের পরিমাণ ৩ হাজার ২৩৯ কোটি টাকা। এ কারণে আমানতকারীদের শঙ্কার কিছু নেই বলেও জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।।