মাংস খাওয়ার স্বাস্থ্যকর উপায়

image_titleগরুর মাংসের পুষ্টিগুণ ও তা খাওয়ার স্বাস্থ্যকর উপায় সম্পর্কে জানান বাংলাদেশ গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ফারাহ মাসুদা।মাংসে ক্যালরি বেশি থাকায় তা শক্তি সরবারহে সহায়তা করে। এছাড়াও মাংসে ভালো পরিমাণে খনিজ-পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও সোডিয়াম থাকে। চর্বিহীন মাংসে ক্লোরাইড, বাইকার্বোনেট ও অ্যাসিড ফসফেট থাকে যা দেহ সুরক্ষিত রাখে।

 গরুর মাংসের পুষ্টিগুণপ্রতি ১০০ গ্রাম গরুর মাংসে ৬৭ শতাংশ জলীয় অংশ থাকে। ১০০ গ্রাম গরুর মাংসতে ১৮০ কিলো-ক্যালরি, ১৪ গ্রাম চর্বি, ২১ গ্রাম প্রোটিন, ৬ মি.গ্রা. ক্যালসিয়াম, ২.৩ গ্রাম লৌহ ও ৮.২ মি.গ্রা. নায়াসিন থাকে। এছাড়াও এতে পটাশিয়াম, সোডিয়াম ও ভালো পরিমাণে কোলেস্টেরল থাকে ।গরুর মাংস রান্নার সঠিক উপায়- মাংস রান্নার আগে কেটে ভালো মতো পরিষ্কার করে নিতে হবে। চিকন ও ধারালো ছুরির সাহায্যে মাংসের ভিতরের অংশের চর্বি আলাদা নিতে পারেন।- মাংস রান্নার আগে ভালো মতো ধুয়ে নেবেন। তবে মনে রাখতে হবে মাংস অতিরিক্ত বা বার বার ধোয়া হলে এর স্বাদ নষ্ট হয়।- কুসুম গরম পানি দিয়ে শেষ বার মাংস ধুয়ে নিলে বাড়তি তেল কমে যায়।- মাংস রান্না করতে হয় মাঝারি বা কম তাপে। অল্প তাপে বেশিক্ষণ সময় নিয়ে মাংস রান্না করলে তা হাড়সহ নরম হয়। এতে মাংস ঠিক মতো সুসিদ্ধ ও সহজ পাচ্য হয়। উচ্চ তাপে মাংস রান্না করলে তা বেশি আঁশালো ও শক্ত হয়ে যায় ফলে স্বাদ অনেকটাই কমে আসে।- রান্নার আগে মাংস মেরিনেইট করে নিলে রান্নার সময় কিছুটা কমে আসে।- মনে রাখবেন, মাংসের টুকরা আকারে বড় হলে তা অল্প তাপে বেশিক্ষণ ধরে রান্না করতে হবে। আর টুকরার আকার ছোট হলে তা একটু বেশি তাপেও রান্না করা যায়।- মাংস রান্নায় ঘি, মাখন অথবা তেল বেশি ব্যবহার না করে তার পরিবর্তে সিরকা বা টক দই দিয়ে মেরিনেইট করে রান্না করা ভালো।

এইভাবে রান্না স্বাস্থ্যকর এবং সহজপাচ্য হয়।- বাড়িতে উচ্চ রক্তচাপ ও কেলেস্টেরলের রোগী থাকলে মাংস রান্নার নানান ধরনের সস, অতিরিক্ত লবণ ব্যবহার করবেন না। সেক্ষেত্রে কাঁচা পেঁপে, নানান মসলা, সিরকা ইত্যাদি ব্যবহার করা যেতে পারে।- অনেকেরই মাংস খেলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা। তারা মাংসের সঙ্গে কাঁচা সবজি ও সালাদ বেশি করে খেতে পারেন। সমস্যা কমে আসবে।ছবি: রয়টার্স।আরও পড়ুনমাংস থেকে অ্যালার্জি হলে  মাংস খান লাগাম টেনে  মাংস খেতে নেই মানা  খাবার থেকে অ্যালার্জি হলে  ।