মাংসের তুর্কি রান্না

image_title

তুরস্কের রান্না বা টার্কিশ খাবারে মাংসের ব্যবহার বেশ জনপ্রিয়। আমাদের দেশেও ধীরে ধীরে এ রান্নার প্রতি মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। ঈদের মাংস দিয়ে সহজে বাড়িতেই বানাতে পারবেন তুরস্কের বিভিন্ন পদ। রেসিপি দিয়েছেন আফরোজা নাজনীন

টার্কিশ আদানা কাবাব

উপকরণ: গরুর মাংসের মিহি কিমা ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজকুচি ১০০ গ্রাম, ধনেপাতা বা পার্সলে কুচি ১ মুঠো, লাল ক্যাপসিকাম ১টা, কাঁচা মরিচ কুচি ৩–৪টি, আদা-রসুনবাটা ১ চা-চামচ, সোমাক পাউডার ১ চা-চামচ, পাপরিকা পাউডার ১ চা-চামচ, জলপাই তেল পরিমাণমতো, লবণ স্বাদমতো। 

প্রণালি: প্রথমে কিমা ছাড়া সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এই মিশ্রণের সঙ্গে হাত দিয়ে কিমা ভালো করে মিশিয়ে নিন। মেশানো হয়ে গেলে সিকে গেঁথে ফ্রিজে ৩ থেকে ৪ ঘণ্টার জন্য রেখে দিন। ফ্রিজ থেকে বের করে কয়লার আগুনে সেঁকতে হবে কাবাব না হওয়া পর্যন্ত। মাঝে মাঝে তেল দিয়ে ব্রাশ করতে পারেন। হয়ে গেলে নামিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার টার্কিশ আদানা কাবাব।

টার্কিশ ল্যাম্ব পোলাও

উপকরণ: খাসি বা ভেড়ার মাংস ৫০০ গ্রাম, বাসমতী চাল ২৫০ গ্রাম, কাঠবাদামের কুচি বা বাদাম ১ মুঠো (শুকনা তাওয়াতে হালকা ভেজে নেওয়া), জলপাই তেল পরিমাণমতো, পেঁয়াজকুচি ১টা (বড়), দারুচিনি, এলাচ, লবঙ্গ, তেজপাতা ২টা করে, আদা-রসুনবাটা ১ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, গরম পানি ৫০০ গ্রাম, ভেজিটেবল স্টক কিউব ১টা, পুদিনাপাতা বা ধনেপাতা কুচি ১ মুঠো, শুকনা কিশমিশ বা অ্যাপ্রিকট ১০-১২টা। 

প্রণালি: গরম তেলে পেঁয়াজ ও দারুচিনি লাল করে ভেজে নিন। এতে খাসির মাংস, একটু লবণ ও আদা-রসুন বাটা দিয়ে ভেজে ভালোভাবে কষিয়ে নিন। এরপর এতে ধুয়ে ভিজিয়ে রাখা চাল দিয়ে নেড়ে ভেজে নিন। ভাজা হলে এতে গরম পানি ও স্টক কিউব দিন। এতে কিশমিশ বা অ্যাপ্রিকট দিয়ে ঢেকে দিন। একদম অল্প আঁচে রান্না করুন। চাল সেদ্ধ হলে ও পানি শুকিয়ে গেলে কাঠবাদাম ও পুদিনাপাতা দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার টার্কিশ ল্যাম্ব পোলাও।