আফগান শান্তি আলোচনায় পাকিস্তানের ভূমিকার প্রশংসা ট্রাম্পের

image_titleমার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আফগানিস্তানের শান্তি আলোচনা এগিয়ে নিতে সহায়তা করায় সোমবার পাকিস্তানের প্রশংসা করেছেন। দীর্ঘ প্রায় ১৮ বছর ধরে চলা যুদ্ধের অবসানে যুক্তরাষ্ট্র তালেবানের সাথে একটি চুক্তি করার প্রচেষ্টা চালানোর প্রেক্ষাপটে গলায় পরিবর্তন এনে এমন মন্তব্য করলেন ট্রাম্প। খবর এএফপি’র।পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পাশে দাঁড়িয়ে ওভাল অফিস থেকে বক্তব্য দেয়ার সময় ট্রাম্প সতর্ক করে আরো বলেন, তিনি সামরিক শক্তি প্রয়োগ করে মাত্র কয়েকদিনের মধ্যে এ যুদ্ধের অবসান ঘটাতে পারেন।

তিনি বলেন, আর এটা করলে ‘আফগানিস্তান পৃথিবীর মানচিত্র থেকে মুছে যাবে।’ তবে এটা সংলাপের মাধ্যমে সমাধান করাই সবার জন্য মঙ্গল।১৯৯০’র দশকে প্রতিবেশি দেশ আফগানিস্তানে তালেবানের ক্ষমতা দখলের সময় তাদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ছিল পাকিস্তান।২০০১ সালে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক অভিযানে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে জঙ্গি তৎপরতা চালিয়ে আসা তালেবান গ্রুপের ওপর তাদের প্রভাবকে প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি সরকারের রাজনৈতিক সুবিধার একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুসঙ্গ হিসেবে দেখা হয়।ট্রাম্প বলেন, ‘গত কয়েক সপ্তাহে আফগানিস্তানের শান্তি আলোচনা বিষয়ে আমরা অনেক দূর এগিয়ে গেছি। আর এই অগ্রগতিতে পাকিস্তান আমাদেরকে সহযোগিতা করেছে।’পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের জন্য আরো অনেক কিছু ঘটছে এবং আমি মনে করি আপনার নেতৃত্বে পাকিস্তানের জন্য আরো অনেক কিছু ঘটতে যাচ্ছে।’এর আগে এ রিপালিকান প্রেসিডেন্ট পাকিস্তানের ব্যাপারে যে মন্তব্য করেছিলেন সেদিক থেকে তার এখন করা মন্তব্য সম্পূর্ণ বিপরীত ইঙ্গিত দিচ্ছে। এর আগে ট্রাম্প নিরাপত্তা সাহায্য নিয়ে প্রতারণা করায় পাকিস্তানকে অভিযুক্ত এবং গত বছর ৩০ কোটি ডলারের নিরাপত্তা সহায়তা বাতিল করেন।ওয়াশিংটনে প্রথম সরকারি সফরে গিয়ে খান বলেন, ‘সামরিক অভিযান কোন সমাধান নয় বলে যারা সবসময় বিশ্বাস করে আমি তাদের একজন। তিনি আরো বলেন, আমি ট্রাম্পের প্রশংসা করছি কারণ তিনি এ যুদ্ধের অবসান ঘটাতে চাচ্ছেন। সূত্র : বাসস।।