ইভটিজিং রোধে নতুন আইন করে প্রশ্নের মুখে দুতের্তে

image_titleনতুন আইনের আওতায় প্রকাশ্যে নারীদের লক্ষ্য করে শিস দিলে কিংবা সিটি বাজালেও তা অপরাধ বলে গণ্য হবে। যারা এ কাজ করবেন তাদেরকে সেফ স্পেস অ্যাক্ট এর অধীনে গ্রেপ্তার করা হবে। দোষী সাব্যস্ত হলে অপরাধীর সর্বোচ্চ ছয় মাসের জেল হবে এবং এক থেকে পাঁচ লাখ পেসো পর্যন্ত জরিমানাও হবে।দুর্তেতে গত এপ্রিলে নতুন এ আইনে স্বাক্ষর করলেও তার সরকারের কর্মকর্তারা গত সোমবারেই আইনটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেছেন।

এ আইনের আওতায় সিটি বা শিস ছাড়াও যৌন ইঙ্গিতবাহী মন্তব্য, প্রকাশ্যে অযাচিত স্পর্শ, শরীরের সংবেদনশীল অংশে হাত দেওয়া সবকিছুই অপরাধ বলে গণ্য।কিন্তু নারী অধিকার সুরক্ষা কর্মীরা বলছেন, প্রেসিডেন্ট দুর্তেতেই এ আইনের সবচেয়ে বড় এবং নির্লজ্জ লঙ্ঘনকারী । তিনি নিজে আইনটি না মানলে এ আইন প্রয়োগ করা কঠিন হবে।৪৭ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট দুতের্তে নানা সময়ই নারীদের নিয়ে নানা বিতর্কিত মন্তব্য এবং ধর্ষণ নিয়ে কৌতুক করে নারী অধিকার কর্মীদের ক্ষুব্ধ করেছেন। যদিও এরপরও দেশে তার জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছেন তিনি।ফিলিপিন্সের উইমেন স লিগ্যাল এন্ড হিউমম্যান রাইটস ব্যুরো প্রচার গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক বলেছেন, প্রেসিডেন্ট নিজে অনবরত নারীদের নিয়ে আপত্তিকর, বিদ্বেষমূলক কথাবার্তা বলতে থাকলে অন্যরাও সহজেই আইন লঙ্ঘন করবে। আমরা আশা করি প্রেসিডেন্ট আইনের রক্ষক হবেন এবং তার মন্ত্রিসভার সদস্যরাও যাতে একই পথ অনুসরণ করে তা নিশ্চিত করবেন। ওদিকে, দুতের্তের মুখপাত্র বলেছেন, প্রেসিডেন্ট এরকম একটি আইনের প্রয়োজন আছে বলে স্বীকার করেছেন। আর ফিলিপিন্সে সব আইন প্রয়োগের হর্তাকর্তা যেহেতু তিনি তাই তিনিই প্রথম এ আইন মানবেন। তিনি যখন কৌতুক করেন সেটা মানুষকে হাসানোর জন্য করেন, কাউকে আক্রমণ করার জন্য করেন না। নতুন আইনটির আওতায় সড়ক, কর্মস্থান, বিনোদনের জায়গা এবং গণপরিবহসহ সব জনসমাগমস্থলে লিঙ্গ-ভিত্তিক যৌন হয়রানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।রেস্তোরাঁ ও সিনেমা হলের মত জায়গায় যৌন হেনেস্তা সম্পর্কে সতর্কবার্তা লেখা থাকতে হবে। একইসঙ্গে অভিযোগ করার জন্য টেলিফোনের হটলাইন নম্বরগুলোও প্রদর্শন করতে হবে, যাতে প্রয়োজনে সঙ্গে সঙ্গে কেউ অভিযোগ করতে পারে।নতুন আইনের অধীনে অনলাইনে লিঙ্গ ভিত্তিক যৌন হয়রানির বিচারও করা হবে। কেউ যদি খোলাখুলি বা ব্যক্তিগত ম্যাসেজের মাধ্যমে শারীরিক, মানসিক বা আবেগের দিক দিয়ে কোনো হুমকি দেয় তাহলেও তা অপরাধ বলে গণ্য হবে।।