ফাইনালে ইংল্যান্ড

নতুন এক চ্যাম্পিয়ন পাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্ব। গতকাল বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে গুঁড়িয়ে ফাইনালের টিকিট কাটে ইংল্যান্ড। আগের দিন ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে পা রাখে নিউজিল্যান্ড। বিশ্বকাপে ২৭ বছর পর ফাইনালে উঠলো ইংল্যান্ড।

সবশেষ ১৯৯২ বিশ্বকাপে ফাইনালে খেলেছিল ইংলিশরা। সেবার ফাইনালে ইমরান খানের পাকিস্তানের কাছে হেরে শিরোপার স্বপ্ন ভাঙে তাদের। আগে আরো দু’বার ফাইনালে খেলার কৃতিত্ব দেখায় ইংল্যান্ড (১৯৭৫ ও ১৯৮৭)। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার কাছে হার দেখে তারা। গতকাল এজবাস্টনে ইংলিশ বোলারদের দাপুটে বোলিংয়ের বিপক্ষে মাত্র ২২৩ রানে গুঁড়িয়ে যায় শিরোপাধারী অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। অজিদের সংগ্রহটা ছোট হতে পারতো আরো। এক প্রান্ত আগলে রেখে ৮৫ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন সাবেক অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। অপেক্ষাকৃত ছোট টার্গেটে ইংল্যান্ডের শুরুটা ছিল দারুণ। ওপেনিংয়ে ১২৪ রানের জুটি গড়েন জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো। ব্যক্তিগত ৩৪ রানে বেয়ারস্টোকে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেলে জুটি ভাঙেন মিচেল স্টার্ক। বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বাধিক উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়েন এ অজি পেসার। চলতি আসরে স্টার্কের শিকার ২৭ উইকেট। এমন আগের রেকর্ডে ২০০৭ বিশ্বকাপে ২৬ উইকেট নিয়েছিলেন অপর অজি পেসার গ্লেন ম্যাকগ্রা। চলতি বিশ্বকাপে দ্বিতীয় সর্বাধিক ২০ উইকেট শিকার টাইগার পেসার মোস্তাফিজুর রহমানের। বেয়ারস্টো বিদায় নিলেও সেঞ্চুরির দিকেই এগোচ্ছিলেন জেসন রয়। তবে লঙ্কান আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনার ভুল সিদ্ধান্তে কাটা পড়ে রয়ের উইকেট।

রয়ের ব্যাটে বল না লাগলেও কট বিহাইন্ডের সিদ্ধান্ত দেন আম্পায়ার। ইংল্যান্ডের রিভিউয়ের সুযোগ না থাকায় সাজঘরে ফিরতে হয় রয়কে। তবে ক্রিজ ছাড়ার আগে অনেকক্ষণ আম্পায়ারদের সঙ্গে তর্কে মাতেন তিনি। এতে ১৯.৪তম ওভার শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৪৭/২-এ।বার্মিংহামের এজবাস্টনে গতকাল টস জিতে ব্যাটিং বেছে নেন  অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। তবে নিজের সিদ্ধান্তের পক্ষে ব্যাট হাতে কিছু করে দেখাতে ব্যর্থ অজি অধিনায়ক। ‘গোল্ডেন ডাক’ মারেন ফিঞ্চ। নিজের প্রথম বলেই উইকেট খোয়ান তিনি। অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের ১.১তম ওভারে ফিঞ্চকে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেলেন ইংল্যান্ডের বার্বাডিয়ান বংশোদ্ভূত পেসার জফরা আর্চার। তৃতীয় ওভারে উইকেট খোয়ান আসরের আরেক ইনফর্ম ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার। ব্যক্তিগত ৯ রানে ইংলিশ পেসার ক্রিস ওকসের বলে জনি বেয়ারস্টোর হাতে ক্যাচ দেন এ অজি ওপেনার। এতে দলকে বিপদে ফেলার সঙ্গে ব্যক্তিগত অর্জনেও পিছিয়ে রইলেন উভয়ে। চলতি বিশ্বকাপে সর্বাধিক ৬৪৮ রান সংগ্রহ ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মার। মাত্র ১ রানে পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ওয়ার্নার। তালিকার তৃতীয় স্থানে বাংলাদেশি তারকা সাকিব আল হাসানের সংগ্রহ ৬০৬ রান। ফিঞ্চের সংগ্রহ ৫০৭। এদিনই প্রথমবার বিশ্বকাপে খেলতে নামেন পিটার হ্যান্ডসকম্ব। আর তার তড়িঘড়ি বিদায়ে কাঁপন ধরে অজি শিবিরে। ৬.১ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৪/৩-এ। তবে চতুর্থ উইকেটে ব্যাট হাতে প্রতিরোধ গড়েন স্টিভেন স্মিথ ও আসরে ধারাবাহিক নৈপুণ্য দেখানো অ্যালেক্স ক্যারি। জফরা আর্চারের বাউন্সারে থুতনিতে আঘাত নিয়েও ক্রিজে লড়াই চালিয়ে যান অস্ট্রেলিয়ার এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। চতুর্থ উইকেটে ১০৩ রানের জুটি গড়েন এ দুজন। তবে ব্যক্তিগত ৪৬ রানে ক্যারির বিদায়ে ১১৭/৪ সংগ্রহ নিয়ে ফের চাপে পড়ে অজিরা। তবে স্টিভেন স্মিথের দৃঢ়তায়  ২০০’র কোঠায় পৌছে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ।১১৯ বলে ৮৫ রানের ইনিংসটা খেলে রান আউট হন স্মিথ। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ২২ ও মিচেল স্টার্ক ২৯ রানের ইনিংস খেললেও এক ওভার বাকি রেখেই ২২৩ রানে গুটিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। এবারের বিশ্বকাপে আদিল রশিদকে খুব একটা ছন্দে দেখা যাচ্ছিল না। তবে মোক্ষম সময়ে ছন্দ ফিরে পেলেন ইংল্যান্ডের পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এ লেগ স্পিনার। গতকাল ১০ ওভারের স্পেলে ৫৪ রানে তিন উইকেট নেন আদিল রশিদ। আর টানা তিন উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার মিডলঅর্ডার ব্যাটিং ধসিয়ে দেন তিন। বিধ্বংসী স্পেলে ৮ ওভারে মাত্র ২০ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন পেসার ক্রিস ওকসও। অপর পেসার আর্চার দুই ও মার্ক উড নেন এক উইকেট। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারি নিয়ে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা পোহান স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার। শাস্তি কাটিয়ে এবারের বিশ্বকাপেই দলে ফেরেন তারা। আসরে ১০ ম্যাচে চার ফিফটিতে  ৩৭৯ রান সংগ্রহ স্টিভেন স্মিথের।।