ট্রাম্প-কিম বৈঠকের প্রশংসায় পোপ, শান্তির আশাবাদ

image_titleদুই কোরিয়ার সীমান্ত এলাকায় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের বৈঠককে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলে প্রশংসা করেছেন রোমান ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস।এ উদ্যোগ শান্তি বয়ে আনবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। পিটার্স স্কয়ারে হাজার হাজার মানুষের উদ্দেশে পোপ তার সাপ্তাহিক ভাষণে বলেন, গত কয়েক ঘন্টায় আমরা কোরিয়ায় মেলবন্ধনের এক চমৎকার উদাহরণ দেখলাম। এর হোতাদের আমি স্যালুট করছি।

সেইসঙ্গে এও প্রার্থনা করছি যেন এমন একটি গুরুত্বর্পর্ণ পদক্ষেপ শান্তি প্রতিষ্ঠার পথে আরো একধাপ এগিয়ে যায়। কেবল কোরিয়া উপদ্বীপই নয় বরং গোটা বিশ্বের ভালর জন্যই যেন তা হয়।মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসাবে ডনাল্ড ট্রাম্পই প্রথম রোববার উত্তর কোরিয়ায় পা রেখেছেন।  দুই কোরিয়ার মধ্যবর্তী অসামরিক এলাকায় (ডিএমজেড)  সাক্ষাৎ করেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে। বৈঠকে থমকে থাকা পরমাণু আলোচনা ফের শুরুও করতে রাজি হয়েছেন ট্রাম্প এবং কিম।দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন এর আগে কিমের পক্ষ থেকে মৌখিকভাবে পোপকে উত্তর কোরিয়া সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। ভ্যাটিকানের কর্মকর্তারা বলছেন, শান্তির জন্য সহায়ক হলে কয়েকটি শর্তসাপেক্ষে উত্তর কোরিয়া সফরের ইচ্ছা রয়েছে পোপের।এ বছরই জাপান সফরের কথা রয়েছে পোপের। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন জানান, পোপ তাকে বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের কাছ থেকে কোনো আনুষ্ঠানিক, লিখিত আমন্ত্রণ পেলে তিনি অবশ্যই এর উত্তর দেবেন। তবে এ ধরনের কোনো আমন্ত্রণ এখনো জানানো হয়নি।।