গরুতে ঘাস খাওয়া নিয়ে বৃদ্ধ চাচাকে এ কেমন নির্যাতন?

image_titleগরুতে ঘাস খাওয়া নিয়ে ঝগড়ায় হতভাগ্য কৃষক মো. হাসেম আলীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় দড়ি দিয়ে বেঁধে নির্মম নির্যাতন করেছে তার ভাইয়ের...গরুতে ঘাস খাওয়া নিয়ে ঝগড়ায় হতভাগ্য কৃষক মো. হাসেম আলীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় দড়ি দিয়ে বেঁধে নির্মম নির্যাতন করেছে তার ভাইয়ের ছেলে ও আত্মীয় স্বজনরা।বৃহস্পতিবার বিকালে দুই পরিবারের ঝগড়ার রেশ ধরে শুক্রবার সকালে হাটহাজারী উপজেলার ২ নম্বর ধলই ইউনিয়নের পশ্চিম ধলই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পশ্চিম ধলই গ্রামের হিম্মৎ চৌধুরী বাড়ির কৃষক মো. হাসেম (৬০) পার্শ্ববর্তী জমি থেকে তার গরুর জন্য ঘাস কেটে আনেন। এ সময় তার আপন ছোট ভাই মো. কাশেমের গরু এসব ঘাস খেয়ে ফেলে।

এ ঘটনায় হাসেম গালমন্দ করলে তার ছোট ভাইয়ের পরিবারের সদস্যদের (ভাইপোরা) সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়।পর দিন শুক্রবার সকালে এ ঘটনার রেশ ধরে কাসেমের দুই ছেলে সাগর (২৩) ও সজীব (১৮) তাদের আত্মীয়-স্বজনদের নিয়ে কৃষক মো. হাসেমের ওপর মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে তাকে মাটিতে ফেলে গরুর রশি দিয়ে হাত-পা ও কোমর বেঁধে কিল-ঘুষি ও লাঠি দিয়ে পেটায়। এতে হাসেম আলী গুরুতর আহত হয়ে পড়েন।এ সময় ওই বৃদ্ধের আর্তচিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।এ ব্যাপারে হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মাহতাব জানান, স্থানীয় কিছুলোক রক্তাক্ত অবস্থায় হাসেম নামক এক বৃদ্ধকে নিয়ে আসে। তার অবস্থার অবনতি দেখে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।শুক্রবার রাতে ওই এলাকার ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মোবাইল ফোনে যুগান্তরকে জানান,বৃদ্ধ কৃষক মো. হাসেমের দুই ছেলে দেশের বাইরে থাকে। তার মধ্যে তার স্ত্রী কিছুদিন আগে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। সেখানে কয়েক দিন আগে তার জরায়ু অপারেশন হয়েছে। এ সুযোগে তাকে একা পেয়ে হাসেম আলীকে পিঠিয়েছে ভাইপোরা। বর্তমানে তিনি চমেক হাসপাতালের ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তবে এখনও তার অবস্থা শংকটাপন্ন।এদিকে হাসেমের ছোট ভাই বাবু বলেন, একা পেয়ে আমার বড় ভাইকে অপর ভাইয়ের ছেলেরা রশি দিয়ে বেঁধে পিটুনি দিয়েছে।এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযুক্ত ভাইপো সাগরের মোবাইলে ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেননি।

অন্যদিকে এ ঘটনায় বৃদ্ধ কৃষক হাসেমের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।।