ভারতকে হারাতে আত্মবিশ্বাসী আমির

image_titleক্রিকেট বিশ্বে সব উত্তেজনাপূর্ণ লড়াইটা হয় ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে। হোক সেটা প্রীতি কিংবা প্রস্তুতি ম্যাচ। আর তাদের মধ্যে লড়াইটাও হয় বাঘে-মহিষে। কিন্তু বিশ্বকাপ এলে যেন বদলে যায় পাকিস্তান।

ভারতের বিপক্ষে লড়াইটাই করতে পারে না সে অর্থে। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে তাদের হারাতে পারেনি তারা। তবে এবার ম্যাচের ফলাফল ভিন্ন হবে বলে মনে করছেন পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ আমির। জয়ের ব্যাপারে দারুণ আত্মবিশ্বাসী এ তরুণ।
১৯৭৮ সালে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে মুখোমুখি হয় ভারত ও পাকিস্তান। এরপর এ পর্যন্ত ১৩১টি ম্যাচ খেলেছে দুই দল। আর তাতে জয়ের পাল্লা ভারী পাকিস্তানেরই। ৭৩টি ম্যাচ জিতেছে তারা। ভারতের জয় ৫৪টি। যার বড় অংশই এসেছে সাম্প্রতিক সময়ে। অথচ বিশ্বকাপে ছয়বার মুখোমুখি হয়ে ছয়বারই হেরেছে পাকিস্তান। এমনকি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও নেই পাকিস্তানের কোন জয়। পাঁচ ম্যাচের সবকটিতেই হার। এবার কি ভাগ্য খুলবে দলটির?
আমির অবশ্য জয়ের ব্যাপারে দারুণ আত্মবিশ্বাসী, 'বিশ্বকাপের প্রতিটি ম্যাচই চাপের, যেমনটা ভারতের বিপক্ষে। আমাদের ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে মাঠে নামতে হবে। আমাদের অবশ্যই বাকি সব ম্যাচ জিততে হবে এবং আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করব।

অবশ্যই, আমরা ভারতকে হারাতে পারি। আজ (গতকাল) আমাদের ব্যাটিং ম্যাচটা গভীরে নিয়ে গিয়েছিল। যদি আমরা আর একটু মানসিক দিক থেকে শক্ত হতে পারি, ইনশাল্লাহ আমরাই জিতব।'
আগামী রোববার ম্যানচেস্টারে ভারতের মুখোমুখি হচ্ছে পাকিস্তান। এবার ভারতকে হারাতে আমিরের বাড়তি আত্মবিশ্বাসের অন্যতম কারণ তার সাম্প্রতিক ফর্ম। দারুণ ছন্দে আছেন তিনি। তিন ম্যাচে ১০টি উইকেট নিয়ে আসরের সর্বাধিক শিকারি এ পেসারই। তারচেয়েও বড় কথা ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ে তিনিই রেখেছিলেন সবচেয়ে বড় ভূমিকা।
ফখর জামানের সেঞ্চুরিতে পাকিস্তান সেদিন করেছিল ৪ উইকেটে ৩৩৮ রান। এ রান তাড়াও খুব কঠিন হতো না যদি ভারতের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা, শেখর ধাওয়ান কিংবা অধিনায়ক বিরাট কোহলি টিকে যেতেন। কারণ বিশ্ব ক্রিকেটে বর্তমানে এ তিন জনই ভয়ংকর ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত। সেদিন শুরুতেই এ তিন খেলোয়াড়কে বিদায় করেছিলেন আমির। এবার বিশ্বকাপেও তার কাছ থেকে এমন কিছু দেখার অপেক্ষায় পাকিস্তান।