শুরুতেই গুগল ‘তেজ’-এর বাজিমাত

মঙ্গলবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আইএএনএস-কে গুগলের এক মুখপাত্র বলেন, “আগের ২৪ ঘন্টায় ৪১০০০০ সক্রিয় গ্রাহকের দ্বারা ১.৮ কোটি জিএমভি পেয়েছে গুগল।”জিএমভি বলতে একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বিক্রি হওয়া পণ্যের মোট মূল্য বোঝায়।সোমবার বিকালে ভারতে তেজ উন্মোচন করেন দেশটির অর্থমন্ত্রী আরুণ জেইটলি। উন্মোচনকালে তিনি বলেন চলতি বছর জানুয়ারিতে এটি নিয়ে গুগল প্রধান সুন্দার পিচাইয়ের সঙ্গে কথা হয়েছে।“ভারতের অর্থনীতি এবং ব্যবসায় দারুণ সম্ভাবনা দেখে গুগল,” বলেন জেইটলি। সামনের মাসগুলোতে নতুন ডিজিটাল অ্যাপটি দিয়ে ডিজিটাল লেনদেনের পরিমাণে বেশ পরিবর্তন আসবে বলে ধারণা করছেন তিনি।এর জবাবে এক টুইট বার্তায় পিচাই বলেন, “আমরা আশা করছি তেজবাইগুগল-এর সহায়তায় আমরা ভারতকে আমদের ডিজিটালইন্ডিয়া ভিশনের আরেক ধাপ কাছে নিয়ে যাবো।”আগের বছর দেশটিতে ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট এবং কয়েনের ব্যবহার বাতিল করেন ভারতের প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এতে দেশটিতে ডিজিটাল পেমেন্ট সেবার ব্যবহার দ্রুত বাড়তে দেখা গেছে।এবার দেশটির এমন সিদ্ধান্তের সুযোগ নিতে সোমবার শুধু ভারতে ‘তেজ’ চালু করেছে মার্কিন সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি, বলা হয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট-এর প্রতিবেদনে।ইংরেজিসহ ভারতের সাতটি ভাষায় অ্যাপটি উন্মোচন করেছে গুগল। অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস দুই প্ল্যাটফর্মের জন্যই এটি উন্মোচন করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।অ্যাপলে পে, অ্যান্ড্রয়েড পে এবং স্যামসাং পে-এর মতোই গ্রাহকের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত থাকবে গুগল তেজ। আপাতত চারটি ব্যংকের সঙ্গে কাজ করছে তেজ। এর মাধ্যমে গ্রাহক অর্থ স্থানান্তর, পেমেন্ট নিতে ও কেনাকাটায় মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন।গুগলের ওয়েবসাইটে বলা হয়, ভারতের জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে তেজ। দেশটির প্রযুক্তি কেন্দ্রগুলো দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে বলেও জানায় তারা। এর আগে গুগল ধারণা প্রকাশ করেছিল ২০২০ সালের মধ্যে ভারতের ই-কমার্স বাণিজ্যের মূল্য হবে ১০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার।