আধুনিকতার আগ্রাসনে বই পড়া হারিয়ে যাচ্ছে : ফজলে কবির

শুক্রবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় চিত্রশালা প্লাজায় বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র আয়োজিত এক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।ফজলে কবির বলেন, “আধুনিকতার আগ্রাসনে বই পড়া হারিয়ে যাচ্ছে। তাই বই পড়ে মূল্যবোধ অর্জন করতে হবে। ভালো মানুষ হতে হবে, দেশের একজন সুনাগরিক হতে হবে।”এসময় শিক্ষার্থীদের বাংলা ভাষার পাশাপাশি বিভিন্ন দেশের দার্শনিক ও সাহিত্যিকদের বই পড়ার পরামর্শ দেন তিনি।“তোমাদের বই পড়ার অভ্যাস করতে হবে। শুধু পাঠ্য বই নয়, এর বাইরে বিভিন্ন বই পড়ে জ্ঞানার্জনের মাধ্যমে তোমরা তোমাদের ভবিষ্যত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবে।”অনুষ্ঠানে কথা সাহিত্যিক ও দৈনিক কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন বলেন, “৩০ লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে আমরা আমাদের প্রাণের বাংলাদেশ অর্জন করেছি। আমরা যে ‘সোনার মোহর’টি পেয়েছি, তা রক্ষা করার দায়িত্ব তোমাদের, এদেশের প্রতিটি মানুষের। আমরা তোমাদের সোনার মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।“বাংলাদেশের প্রতিটি প্রান্তে তোমাদের মাধ্যমে আলো জ্বালাতে চাই। তোমাদের আলোয় আলোকিত হবে বাংলাদেশ, আলোকিত হবে পৃথিবী। বই তোমাদের স্বপ্নের কাছে পৌঁছে দেবে, স্বপ্নের সমান হতে সাহায্য করবে।”এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত অভিভাবক ও শিক্ষকদের শিক্ষার্থীদের সত্যিকারের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের দেশভিত্তিক উৎকর্ষ কার্যক্রমের কলেজ পর্যায়ের বইপড়া কর্মসূচির আওতায় এবছর ঢাকা মহানগরীর ১৯টি কলেজের ৭৭৩ জন শিক্ষার্থীকে পুরস্কৃত করা হয়।বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খন্দকার মো. আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন আইএফআইসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মো. শাহ আলম সারওয়ার।পরে শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।