মেডিকেল ভর্তিতে নম্বর কাটায় ‘বাধা নেই’

রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে চেম্বার বৃহস্পতিবার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী হাই কোর্টের ওই আদেশ স্থগিত করে ৩ অক্টোবর শুনানির জন্য বিষয়টি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে দিয়েছেন।এই আদেশের ফলে মেডিকেল ও ডেন্টালের ভর্তি পরীক্ষায় নম্বর কাটার সিদ্ধান্ত কার্যকরে আপাতত কোনো বাধা থাকল না বলে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জানিয়েছেন।২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষ এমবিবিএস কোর্সে ভর্তির আবেদন আহ্বান করে গত ২১ অগাস্ট পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেখানে বলা হয়, এমবিবিএস বা বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয়বার অংশগ্রহণকারীদের সর্বমোট নম্বর থেকে ৫ নম্বর কেটে মেধাতালিকা তৈরি করা হবে।বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) এ সিদ্ধান্তকে বেআইনি ঘোষণার নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ একটি রিট আবেদনে করেন।ওই আবেদনের শুনানি নিয়ে গত মঙ্গলবার নম্বর কাটার সিদ্ধান্ত স্থগিত করে রুল জারি করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের অবকাশকালীন বেঞ্চ।রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ওই আদেশের বিরুদ্ধে চেম্বার আদালতে গেলে বৃহস্পতিবার শুনানি হয়।শুনানি শেষে হাই কোর্টের আদেশ স্থগিত করে রাষ্ট্রপক্ষের লিভ টু আপিলের (আপিলের অনুমতি) শুনানির জন্য আগামী ৩ অক্টোবর দিন ঠিক করে দেন চেম্বার বিচারপতি।চেম্বার আদালতে শুনানির পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের বলেন, “দ্বিতীয়বার যারা পরীক্ষা অংশ নেবে আর প্রথমবার যারা অংশ নেবে, তাদের মধ্যে সমতা আনতেই বিএমডিসির ভর্তি নীতিমালায় ওই নম্বর কাটার বিষয়টি এসেছে।“চেম্বার আদালত হাই কোর্টের আদেশ স্থগিত করায় আগামী ৬ অক্টোবরের মেডিকেলের ভর্তি ও ১০ নভেম্বরের ডেন্টালের পরীক্ষায় নম্বর কাটার ওই সিদ্ধান্ত কার্যকরে কোনো বাধা নেই।”বিএমডিসির ভর্তি নীতিমালায়, মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি থাকা যেসব শিক্ষার্থী কলেজ পরিবর্তনে আশায় ফের পরীক্ষা দেবেন তাদের ৭ দশমিক ৫ নম্বর কাটার সিদ্ধান্ত রয়েছে।চেম্বার আদালতের আদেশের পর এ সিদ্ধান্ত কার্যকরেও কোনো বাধা নেই বলে জানান অ্যাটর্নি জেনারেল।