ডিএসইতে প্রধান সূচক ৫২ ও সিএসইতে বেড়েছে ৮৮ পয়েন্ট

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রবিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গত কার্যদিবসের চেয়ে প্রধান সূচক ও লেনদেন বেড়ে শেষ হয়েছে এদিনের লেনদেন কার্যক্রম। এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ৫২ দশমিক ৫০ পয়েন্ট বেড়েছে এবং সিএসইর প্রধান সূচক ৮৮ দশমিক ৪৩ পয়েন্ট বেড়েছে।রবিবার উভয় পুঁজিবাজারে মোট লেনদেন হয়েছে এক হাজার ৩৩৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। গত বৃহস্পতিবার লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ১৯৭ কোটি টাকা। ডিএসই ও সিএসইর ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।এদিন ডিএসইতে টাকার অঙ্কে মোট লেনদেন হয়েছে এক হাজার ২৫৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা। গত বৃহস্পতিবার লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ১৪৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা। সুতরাং এক কার্যদিবসের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১১৫ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। এদিন ডিএসইতে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫২ দশমিক ৫০ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ১৬৭ পয়েন্টে, ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ২০ দশমিক ৩৮ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৩৬৮ পয়েন্টে এবং ২২ দশমিক ৯৩ পয়েন্ট বেড়ে ডিএসই-৩০ সূচক দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ২০১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩২৯টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৪৩টির, কমেছে ১৫৮টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ২৮টি কোম্পানির শেয়ার দর।এছাড়া টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- লংকা-বাংলা ফাইন্যান্স, প্রিমিয়ার ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মা, ন্যাশনাল ব্যাংক, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, গ্রামীণ ফোন, সামিট পাওয়ার, ফরচুনা সু, আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক এবং এক্সিম ব্যাংক।অন্যদিকে এদিন সিএসইতে মোট শেয়ার লেনদেনের পরিমান ৭৭ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। গত বৃহস্পতিবার লেনদেন হয়েছিল ৫২ কোটি ৭৩ লাখ টাকার শেয়ার।এদিন সিএসইর প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৮৮ দশমিক ৪৩ পয়েন্ট বেড়ে ১১ হাজার ৫৫৬ পয়েন্টে, সিএএসপিআই সূচক ১৪১ দশমিক ৩৯ পয়েন্ট বেড়ে ১৯ হাজার ১১৫ পয়েন্টে, সিএসই-৫০ সূচক ১৫ দশমিক ৪৩ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৪২৪ পয়েন্টে এবং সিএসই-৩০ সূচক ৭৯ দশমিক ০৪ পয়েন্ট বেড়ে ১৬ হাজার ৪১৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।এদিন সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৬৭টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৯টির, কমেছে ১৩৪টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ২৪টি কোম্পানির শেয়ার দর।টাকার অঙ্কে এদিন সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, স্কয়ার ফার্মা, লংকা-বাংলা ফাইন্যান্স, গ্রামীণ ফোন, ন্যাশনাল ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ইউসিবি ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, অগ্নি সিস্টেম এবং আইডিএলসি ফাইন্যান্স।