বাংলাদেশের উৎপাদিত চাল বিদেশে রপ্তানির পরিকল্পনা করছে সরকার খাদ্যমন্ত্রী

image_titleখাদ্যমন্ত্রী সাধণ চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, সরকার দেশের চাহিদা মিটিয়ে বাংলাদেশের উৎপাদিত চাল বিদেশে রপ্তানি করার পরিকল্পনা করছে। বুধবার সকালে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা খাদ্য গুদামে প্রান্তিক কৃষক এবং মিলারদের কাছে থেকে ধান ও চাল ক্রয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে তিনি এ সব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, আমরা সরকারিভাবে প্রান্তিক কৃষক এবং মিলারদের নিকট থেকে ধান চাল ক্রয়ের যে বরাদ্দ দিয়েছি, তা যেন জোরালোভাবে ক্রয় করা হয়। যাতে বাজারে এর প্রভাব পরে।

তিনি আরো বলেন, স্থায়ীভাবে সমাধানের জন্য যে সকল এলাকায় বোরো ধান বেশি উৎপাদন হয়, সেখান থেকে আমরা যাতে ১০ লক্ষ মেট্রিক...খাদ্যমন্ত্রী সাধণ চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, সরকার দেশের চাহিদা মিটিয়ে বাংলাদেশের উৎপাদিত চাল বিদেশে রপ্তানি করার পরিকল্পনা করছে।বুধবার সকালে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা খাদ্য গুদামে প্রান্তিক কৃষক এবং মিলারদের কাছে থেকে ধান ও চাল ক্রয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে তিনি এ সব কথা বলেন।মন্ত্রী বলেন, আমরা সরকারিভাবে প্রান্তিক কৃষক এবং মিলারদের নিকট থেকে ধান চাল ক্রয়ের যে বরাদ্দ দিয়েছি, তা যেন জোরালোভাবে ক্রয় করা হয়। যাতে বাজারে এর প্রভাব পরে।তিনি আরো বলেন, স্থায়ীভাবে সমাধানের জন্য যে সকল এলাকায় বোরো ধান বেশি উৎপাদন হয়, সেখান থেকে আমরা যাতে ১০ লক্ষ মেট্রিক টন ধান কিনতে পারি সে ব্যবস্থা করা হবে।জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ইফতেখার উদ্দিন শামীম, পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন, সিরাজগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আবু ইউসুফ সূর্য্য ও আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট কেএম হোসেন আলী হাসান বক্তব্য রাখেন।উল্লেখ্য, এ বছর সিরাজগঞ্জ জেলায় ৫ হাজার ৮৮৩ মেট্রিক টন ধান, ২২হাজার ১০০ মেট্রিক টন বোরো চাল, আতব চাউল ৫ হাজার ৮২২ মেট্রিক টন এবং ২ হাজার ২৫১ মেট্রিক টন গম সংগ্রহ করা হবে।সরকারিভাবে ধানের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৬ টাকা কেজি, চাল ৩৬ টাকা কেজি ও আতব চাল ৩৫ টাকা কেজি।।