যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েল জোট আমাদের কাছে পরাস্ত হবে ইরান

image_titleযদি হামলা করে তাহলে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েল সামরিক জোট তাদের কাছে পরাজিত হবে বলে জানিয়েছেন ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আমির হাতামি। দেশটির আধা-সরকারি বার্তা সংস্থা ইসলামিক রিপাবলিক বার্তা সংস্থার (ইরনা) বরাত দিয়ে রয়টার্স বুধবার এ তথ্য জানিয়েছে। 
প্রতিরক্ষামন্ত্রী আমির হাতামি বলেন, ‘আমরা মার্কিন আর ইহুদিবাদী জোটকে পরাজিত করবো। যেকোনো ধরনের হুমকি এবং অতিরিক্ত চাহিদা মেটানোর জন্য ইরানের সর্বোচ্চ মাত্রার প্রতিরক্ষা ও সামরিক প্রস্তুতি রয়েছে।


ইরানের সঙ্গে উত্তেজনা বৃদ্ধির জেরে মধ্যপ্রাচ্যে ইতোমধ্যে অতিরিক্ত সামরিক সরঞ্জাম পাটিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। যার মধ্যে দুটি বিমানবাহী রণতরী পারস্য উপসাগরে, পাঁচটি বি-৫২ বোমারু বিমান কাতারে এবং নতুন প্রযুক্তির প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে।
ইরান হামলা করতে পারে এমন আশঙ্কার কথা জানিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে সামরিক উপস্থিতি বাড়ায় যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্পের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন ‘বিশ্বাসযোগ্য ও সুনিদিষ্ট’ গোয়েন্দা তথ্যের বরাত দিয়ে ইরানে সামরিক উপস্থিতি বাড়ানোর এমন ঘোষণা দেন।
এ ছাড়াও ইরানকে মোকাবিলায় মধ্যপ্রাচ্যে ১ লাখ ২০ হাজার সেনা মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের এক বৈঠকে সেনা মোতায়েনের এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ইরান-যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে যুদ্ধাবস্থার দিকে অগ্রসর হচ্ছে তারই নমুনা
বুধবার আলাদাভাবে ইরানের এক শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, সম্মুখ যুদ্ধ থেকে শুরু করে কূটনৈতিকভাবে সব উপায়ে পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত ইরান। দেশটির সেনাবাহিনীর এক কমান্ডার বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ইরানে পা ফেললে তাদের মাথায় আঘাত করা হবে। 
রাশিয়া সফররত মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র চায় ইরান যেন একটি স্বাভাবিক দেশের মতো আচরণ করে। আমেরিকার স্বার্থ আক্রান্ত হলে তারা সমুচিত জবাব দেয়া হবে বলে সতর্ক করেন তিনি।
ইরান অবশ্য বরাবরের মতো যুক্তরাষ্ট্রের এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ইরাকে মার্কিন অভিযানের সময় যেরকম ‘ভুয়া গোয়েন্দা তথ্য’ ছড়ানো হচ্ছিল ঠিক সেরকম করে যুক্তরাষ্ট্র গোয়েন্দা তথ্যের বরাত দিয়ে হামলার চক্রান্ত করছে বলে দাবি তেহরানের।
এসএ/পিআর