গান গাওয়ার সময় সুনামির ঢেউয়ে ভেসে গেলেন শিল্পীরা

image_titleভয়াবহ সুনামির আঘাতে ইন্দোনেশিয়ার সুন্দা স্ট্রেইট উপকূলে ২২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন হাজারো মানুষ। সেই ভয়াবহ সুনামির সময়কার একটি ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে। ওই ভিডিওতে দেখা গেছে স্টেজে গান করছিলেন শিল্পীরা।

সে সময়ই সুনামির ঢেউয়ে স্টেজ লন্ডভন্ড হয়ে যায়। আকস্মিক সুনামির জলস্রোতে এক শিল্পীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।স্থানীয় একটি লোকাল রক ব্যান্ডের গান উপভোগ করছিলেন দর্শকরা। এর মধ্যেই সুনামির স্রোত ধেয়ে আসে। কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই সব কিছু ভাসিয়ে নিয়ে যায় পানির স্রোত। শনিবারের ওই আকস্মিক সুনামির আঘাতের সময় ইন্দোনেশিয়ার পপ ব্যান্ডের স্টেজ পারফর্মেন্স উপভোগ করছিলেন দর্শকরা। আকস্মিক জলস্রোতে ১৭ জন নিখোঁজ হয়েছেন।ক্র্যাকাটোয়া আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাতের কারণেই সুনামি সৃষ্টি হয়েছে। ওই আগ্নেয়গিরি থেকে আবারও অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়েছে। জীবিতদের উদ্ধারে ইতোমধ্যেই তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে উদ্ধারকারী দল। সুনামির কারণে বিভিন্ন স্থানে গাছ উপড়ে গেছে। সুনামিতে এখন পর্যন্ত সাত শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। এছাড়া নিখোঁজ রয়েছে আরও ৩০ জন।সুনামিতে ৫৫৮ বাড়ি-ঘর ধ্বংস হয়ে গেছে। এছাড়া আরও নয়টি হোটেল, ৬০টি রেস্তোরাঁ এবং ৩৫০টি নৌকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সুনামিতে আবাসিক এবং পর্যটন এলাকা মারাত্নকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সুন্দা স্ট্রেইটের স্থানীয় বাসিন্দা এবং পর্যটকদের উপকূলীয় এলাকার বীচ থেকে দূরে থাকার জন্য সতর্ক করা হয়েছে। এছাড়া আগামী ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত উচ্চ জোয়ারের সতর্কতা জারি করা হয়েছে।আবহাওয়া, জলবায়ু এবং ভূতাত্ত্বিক সংস্থার (বিএমকেজি) কর্মকর্তা রহমত ত্রিয়োনো বলেন, দয়া করে সুন্দা স্ট্রেইটের আশেপাশের বীচে ঘোরাঘুরি করবেন না। যাদের বিভিন্ন এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে তাদের এখনই বাড়ি ফিরে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।টিভি ফুটেজে সুনামির আঘাতে রাস্তা-ঘাটে বাড়ি-ঘরের ধ্বংসস্তুপ, রাস্তায় গাড়ি উল্টে পড়ে থাকতে এবং গাছ উপড়ে থাকার ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।এর আগে ২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বরে শক্তিশালী ভূমিকম্পের পর ভারত মহাসাগরে সুনামির আঘাতে ১৩টি দেশের প্রায় ২ লাখ ২৬ হাজার মানুষ প্রাণ হারায়। এর মধ্যে ১ লাখ ২০ হাজারের বেশি মানুষই ইন্দোনেশিয়ায় প্রাণ হারায়।।