বরিশাল ডিসি অফিসের বারান্দায় দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, তাকে কারাগারে রেখে সরকার ৫ই জানুয়ারির মতো  নির্বাচন করতে চায় সরকার। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করতে যাওয়া আইনজীবীদের তিনি এ কথা বলেন। বেগম জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের পর তার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, সরকারের সদিচ্ছা না থাকলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা সম্ভব নয়।এর আগে বিকাল ৪টার দিকে কারাগারে যান খালেদা জিয়ার চার আইনজীবী। অপর আইনজীবীরা হলেন অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া। খন্দকার মাহবুব হোসেন জানান, পবিত্র রমজানের শুরুতে দেশবাসী ও দলের নেতাকর্মীদের রমজানুল মোবারকের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন খালেদা জিয়া। দেশবাসীর কাছে তিনি দোয়াও চেয়েছেন। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যেসব মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হচ্ছে সেগুলোর বিষয়ে আলোচনা করতে কারাগারে এসেছিলেন তারা। ওই সব মামলার বিষয়ে বিশদ আলোচনা করেছেন। খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো নেই, খুব খারাপ। তিনি ব্যথায় প্রচ-ভাবে কষ্ট পাচ্ছেন। তাকে সুচিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বর্তমানে ৬টি মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট রয়েছে। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া আগের থেকে অনেক বেশি দুর্বল হয়ে পড়েছেন। চলাফেরা করতে প্রচ- কষ্ট হচ্ছে। তিনি রোজা রাখবেন। কিন্তু শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ার কারণে তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালের মতো বিশেষায়িত জায়গায় চিকিৎসা সুবিধা দিলে এই রমজানে একটু ভালো লাগতো বলে তিনি তাদের জানিয়েছেন। এসময়ে তাকে অনেকটা শঙ্কিত দেখা গেছে বলেও একজন আইনজীবী জানান।  বরিশালে ভিক্ষুক দুই কিশোরী গণধর্ষণের ঘটনায় দুই জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা হলো নগরীর পলাশপুরের বৌ বাজার এলাকার রশিদ মোল্লার ছেলে কালাম মোল্লা ও একই এলাকার মালেক হাওলাদার ওরফে মিন্টু  হাওলাদারের ছেলে মাসুদ রানা ওরফে মাছুম। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা মুন্নি বেগম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বিএমপি পুলিশ ধর্ষকদের আটক করে আদালতে সোপর্দ করেছে। গতকাল বুধবার বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ধর্ষিতা দুই ভিক্ষুক কিশোরী জবানবন্দি দিয়েছেন। মামলা সূত্রে জানা গেছে, বাদীর বাকপ্রতিবন্ধী মেজো মেয়ে ও তার বান্ধবী গত ১৪ই মে রাত সাড়ে ১১টায় নগরীর গির্জামহল¬ায় ঘোরাঘুরি করছিলো। আসামিরা কিশোরী দুজনকে ধাওয়া করে নগরীর ৬নং ওয়ার্ডস্থ শিশু পার্কের দিকে নিয়ে যায়। পরে পার্কের ওই জায়গা থেকে আসামিরা দুই কিশোরীকে মোটরসাইকেলে করে পলাশপুরের উত্তরা হাউজিং এর শানুর ফাঁকা মাঠে নিয়ে যায়।  সেখানে রাত ১টায় দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ করা হয়। এরপর আসামিদের হাত থেকে কিশোরীরা পালিয়ে লঞ্চ ঘাটে চলে যায়। আসামিরা পুনরায় ডিসি অফিসের উত্তর পাশে বিল্ডিং এর নিচে বারান্দায় নিয়ে দুই কিশোরীকে ধর্ষণ করে।