পদ্মা নদীর বিবর্তনের গল্প ‘পদ্মাপুরাণ’

কালের বিবর্তনে প্রমত্ত পদ্মা তার আগের রূপ হারিয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে বদলেছে দুই তীরে বসবাস করা মানুষের জীবন। সেই জীবনের গল্প নিয়েই নির্মিত হচ্ছে পদ্মাপুরাণ ।চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করছেন চম্পা ও শম্পা রেজা। চিত্রনায়িকা চম্পা অভিনয় করছেন একজন মাদক বিক্রেতার চরিত্রে, অন্যদিকে টিভি অভিনেত্রী শম্পা রেজাকে দেখা যাবে শিখণ্ডী (তৃতীয় লিঙ্গ) সম্প্রদায়ের প্রধানের চরিত্রে। তাদের পাশাপাশি অভিনেত্রী সাদিয়া মাহির চরিত্রটিকে ঘিরে এগিয়েছে চলচ্চিত্রটির গল্প।এছাড়াও কায়েস চৌধুরী, তরুণ খলঅভিনেতা শিমুল খানকেও দেখা যাবে দু টি অন্যরকম চরিত্রে।রায়হান শশীর চিত্রনাট্যে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করছেন রাশিদ পলাশ। ইতোমধ্যে রাজশাহীতে পদ্মা নদীর তীরে এর ৫০শতাংশ চিত্রধারণ সম্পন্ন হয়েছে।  নির্মাতা জানালেন, ঈদ উল ফিতরের পর চলচ্চিত্রটির বাকি অংশ শুটিং শেষ করতে চান তিনি।চলচ্চিত্রটি প্রসঙ্গে রাশিদ পলাশ বলেন, পদ্মাপুরাণ মূলত নদীপারের গল্প। বর্তমান সময়ে নদীকেন্দ্রিক যে জীবন, তা আর নেই। নদী পারের যে পরিবর্তনগুলো আমরা আজ দেখি তাই মূলত আমার সিনেমার গল্প।  নদী পারে অভাব বেড়েছে, শিক্ষা নেই, নেই মানবিকতা। সবচেয়ে ভয়ানক হলো অপরাধমূলক কাজ বেড়ে গেছে। তাহলে কেমন আছে সেই কুবের, মালা, কপিলারা? আমার সিনেমার দর্শন মূলত এমন। নির্মাতা আরও বলেন, চলচ্চিত্রটিতে দুই গুণী শিল্পী চম্পা ও শম্পা রেজাকে পেয়েছি আমরা। তাদের দু জনের অভিনয় দর্শকদের মুগ্ধ করবে বলেই আশা করছি। দ্বিতীয় অংশের শুটিংয়ে কাস্টিংয়ের ক্ষেত্রে একটি বড় চমক অপেক্ষা করছে। চমক হিসেবে কে উপস্থিত হচ্ছেন, তা এখনই বলতে চাই না। চলচ্চিত্রটিতে গান ব্যবহৃত হচ্ছে পাঁচটি। ইতোমধ্যে গানগুলো তৈরি হয়েছে। শেখ সৈকতের সংগীত পরিচালনায় গানগুলো গেয়েছেন শফি মন্ডল, ঐশি, টুটুল, সাহিনা হক, মিউজিক শেখ সৈকত।