ইলিয়াস নিখোঁজের ৬ বছর, এখনও ফেরার আশা স্বজনদের

বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এম ইলিয়াস আলী এবং তার গাড়িচালক আনসার আলী নিখোঁজের ছয় বছর পূর্ণ হল আজ।২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে নিজ বাসায় ফেরার পথে ঢাকার মহাখালী থেকে নিখোঁজ হন এম ইলিয়াস আলী ও তার গাড়িচালক আনসার আলী।মধ্যরাতে মহাখালী এলাকা থেকে ইলিয়াস আলীর গাড়িটি উদ্ধার করে পুলিশ। তবে সেই থেকে তারা নিখোঁজ রয়েছেন। নিখোঁজের ছয় বছরেও সন্ধান মেলেনি তাদের। ইলিয়াস আলী নিখোঁজের কারণ রহস্যাবৃতই রয়ে গেছে।অবশ্য ইলিয়াস আলী ও তার গাড়িচালক আনসার আলীকে ফিরে পেতে এখনও অপেক্ষার প্রহর গুণছেন তাদের স্বজন। ইউএনবি।এ ছাড়া নিখোঁজ ইলিয়াস আলীকে ফিরে পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী হলেও দলের নেতাকর্মীরা হতাশ।স্বামীকে ফিরে পাওয়ার অপেক্ষায় ইলিয়াসের স্ত্রী তাহসিনা রুশদি লুনা। বাবাকে ফিরে পাওয়ার আশায় বুকে পাথর বেঁধে দিন যাপন করছেন ইলিয়াসপুত্র আবরার ইলিয়াস, লাবিব সারার ও মেয়ে সাইয়ারা নাওয়াল।পরিবারের একটিই দাবি- তারা যে কোনো মূল্যে ইলিয়াস আলী ও তার গাড়িচালক আনসার আলীকে অক্ষত এবং সুস্থ অবস্থায় তাদের মাঝে ফিরে পেতে চান। এ জন্য তারা দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন।আলাপকালে ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদি লুনা বলেন, সরকার আন্তরিক হলে ইলিয়াসকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব। কেননা গুম-নিখোঁজ হওয়া অনেক ব্যক্তি এরই মধ্যে তাদের পরিবারের কাছে ফিরে এসেছেন। আমরাও বিশ্বাস করি, ইলিয়াস আলী একদিন ফিরে আসবেন। আমার শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত ইলিয়াসের অপেক্ষায় থাকব। এখন তিনি শুধু আল্লাহর ওপর ভরসা করে ইলিয়াস আলীর ফিরে আসার পথ চেয়ে রয়েছেন।তিনি বলেন, অনেক নির্যাতন করেও ইলিয়াস নিখোঁজ আন্দোলন দমন করা সম্ভব হয়নি। এখনও ইলিয়াসের সন্ধান দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে।ইলিয়াস আলী নিখোঁজ ইস্যুতে ২০১২ সালের ২৩ এপ্রিল বিশ্বনাথে ভয়াবহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে নিহত হয় মনোয়ার, সেলিম ও জাকির।সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এম ইলিয়াস আলীর গুমের ছয় বছর পূর্ণ হওয়ায় তাকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে সিলেট জেলা বিএনপি মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে। মঙ্গলবার বাদ জোহর হযরত শাহজালাল (রহ) দরগাহ মাজার মসজিদে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে।