আফগান সিরিজে মাহমুদুল্লাহর ভাবনায় র‌্যাঙ্কিং

মিরপুরে অনুশীলনের ফাঁকে মিরাজ (বামে) ও মাহমুদুল্লাহ আগানিস্তানের বিপক্ষে হারের তিক্ত অভিজ্ঞতা আছে টাইগারদের। শুধু তাই নয়, আইসিসির সহযোগী দেশ হংকং, আয়াল্যান্ডের বিপক্ষেও অতীতে হার দেখেছে বাংলাদেশ।  হারগুলোর অন্যতম কারণ ছিল বাজে ব্যাটিং। এছাড়া বিদেশের মাটিতেও টাইগারদের বড় ব্যর্থতা এ ব্যাটিংয়েই। যে কারণে প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান হলেও বাংলাদেশে দলের সিনিয়র ক্রিকেটার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ একে বড় চ্যালেঞ্জ মানছেন। আফগানদের বিপক্ষে ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে যাওয়ার আগে ক্যাম্পে জোর প্রস্তুতি চলছে টাইগারদের। এরই মধ্যে ফিটনেস ক্যাম্পের সঙ্গে নিজেরাও সুযোগ পেলে করে নিচ্ছেন স্কিল অনুশীলন। বিশেষ করে আফগান  লেগ স্পিনারদের সামলাতেই চলছে ব্যাটিং প্রস্তুতি। তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীম ছাড়াও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদও ব্যাটিংয়ে বেশ মনোযোগী। নেটে তরুণ লেগস্পিনার জুবায়ের হোসেন লিখনের বিপক্ষে তাকে দেখা যায় ব্যাটিং অনুশীলন করতে। বলার অপেক্ষা রাখে না তারা ব্যাটিংটাই চ্যালেঞ্জ ধরে নিজেদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করছেন। তবে এ সবের পেছনে মাহমুদুল্লাহর অন্যতম ভাবনা র‌্যাঙ্কিং। কারণ আফগানদের চেয়ে এ ফরমেটে পিছিয়ে থাকাটা মেনে নেয়া টাইগারদের জন্য অনেকটাই কঠিন। গতকাল সংবাদমাধ্যমে এ সিরিজ নিয়ে মাহমুদুল্লাহ তুলে ধরেন তার নানা মত। সেই কথোপকথনের মূল অংশ তুলে ধরা হলো-প্রশ্ন: আফগান লেগ স্পিনারদের সামলাতে কীভাবে প্রস্তুত হচ্ছেন?মাহমুদুল্লাহ:  আমরা অলরেডি ভিডিও ফুটেজ দেখেছি। যদিও আমি মুজিবকে এখনও ফেস করিনি। রশিদ খানকে খেলা হয়েছে। এর আগে যখন হোম কন্ডিশনে আফগানিস্তানের সঙ্গে খেলেছি তখন খেলেছি আমরা। আমার মনে হয় আগেও বলেছি ওদের বোলিং অ্যাটাকের ভ্যারাইটিটা আছে, তবে তাদের মোকাবিলা করার মতো ব্যাটিং সামর্থ্য আছে আমাদের এবং সঠিকভাবে নিজেদের কৌশলগুলো প্রয়োগ করতে হবে। এটা চ্যালেঞ্জিং একটা সিরিজ হবে। আপনি যদি র‌্যাঙ্কিংয়ের দিকে দেখেন ওরা আটে আমরা দশে। আমার মনে হয় আমাদের জন্য ভালো একটা সুযোগ নিজেদের এগিয়ে নেয়ার।প্রশ্ন: টি-টোয়েন্টি সিরিজে আফগানিস্তানকে প্রতিপক্ষ হিসেবে কীভাবে মূল্যায়ন করছেন?মাহমুদুল্লাহ: আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বড় টিম ছোট টিম বলতে কিছু নেই। ভালো পারফর্ম করলে নির্দিষ্ট দিনে যে কোনো দল যে কাউকে হারাতে পারে। বলার অপেক্ষা রাখে না, আমাদের ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে আফগানিস্তান হোক, ভারত কিংবা অস্ট্রেলিয়া যে কারো সঙ্গেই খেলি না কেন। এই ছোট ফরম্যাটে যেহেতু কামব্যাক করার সুযোগ খুবই কম, শুরুটা আমাদের ভালো করতে হবে। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং- ক্রিকেটের প্রতিটি বিভাগেই আমাদের ভালো করতে হবে।প্রশ্ন: এ সিরিজে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন কোন বিষয়টিকে?মাহমুদুল্লাহ:  আমি যেটা আগে বললাম, আমাদের ব্যাটিং ডেপথটা যেহেতু আছে ওইটার উপরে আমাদের জোর দিতে হবে। আর আমাদের বোলিং বিভাগও ভালো করছে। সাকিব আছে, অপু আছে, মিরাজ আছে; আমাদের বোলিংয়েও ভ্যারাইটি আছে। যদি বোলিং শক্তির কথা বলেন, ওদের স্ট্রেংথ আমাদের স্ট্রেংথ ভিন্ন। ওইটা নিয়ে বরঞ্চ মাথা না ঘামিয়ে আমরা আমাদের স্ট্রেংথগুলোর দিকে ফোকাস করে যেন যেভাবে নিদাহাস ট্রফিতে ক্যালকুলেটিভ রিস্ক নিয়ে খেলেছি সেই  জিনিসগুলো যদি অ্যাপ্লাই করতে পারি তাহলে ইতিবাচক ফলাফল আশা করতে পারি।প্রশ্ন: বোলিং নিয়ে আপনার কোনো পরিকল্পনা আছে কী ?মাহমুদুল্লাহ: নিদাহাস ট্রফিতে তো আমি মোটামুটি রেগুলার বোলিং করেছি। যেহেতু এখন একটা ব্রেক থেকে এসে মাত্র ক্যাম্প শুরু করলাম এখন শুধু ফিটনেস ও ব্যাটিং নিয়ে কাজ করছি। কিছুদিনের মধ্যে বোলিং স্টার্ট করবো।প্রশ্ন: জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ নিয়ে ভাবনা কতটা?মাহমুদুল্লাহ: অবশ্যই চিন্তা আছে। কিন্তু আপাতত সাদা বলের দিকে ফোকাস করছি। আমার মনে হয় খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা সিরিজ। স্টেপ আপ ইন দ্য র‌্যাঙ্কিংস অব টি-টোয়েন্টি। সেদিক থেকে চিন্তা করলে অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ একটা সিরিজ।প্রশ্ন: আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ দলের লক্ষ্য?মাহমুদুল্লাহ: ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ব থাকবে যেন আমরা ভালো পারফর্ম করতে পারি। এবং বোলারদের ভালো একটি ফিডব্যাক দিতে পারি। কারণ, আমরা জানি ওদের বোলিংয়ে ভালো ভ্যারাইটি আছে। আমার মনে হয় খুব চ্যালেঞ্জিং সিরিজ হবে আমাদের জন্য।